ঢাকা ০৯:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারত থেকে আসা ২০০ টন তরল অক্সিজেনের খালাস শুরু হয়েছে

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০২:০৩:১৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১
  • 40

আমিনুল ইসলাম ,সিরাজগঞ্জ সদর প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলস্টেশনে। ভারতের ঝাড়খন্ড প্রদেশের জামশেদপুর থেকে ইন্দো-বাংলা অক্সিজেন এক্সপ্রেস নামের ট্রেনটি বেনাপোল হয়ে রোববার সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে এই স্টেশনে পৌঁছেছে। এর আগে শনিবার রাত ১০টার দিকে ট্রেনটি বেনাপোল স্টেশনে পৌঁছায়।

রোববার (২৫ জুলাই) বেলা পৌনে ১১টার দিকে ১০ কন্টেইনার অক্সিজেন নিয়ে একটি ট্রেন বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম স্টেশনে প্রবেশ করেছে। সেখান থেকে খালাস করে লরিতে করে ঢাকা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে রেল ও স্বাস্থ্য অধিদফতর।

সেখানে জেলা প্রশাসক (ডিসি) ফারুক আহম্মদ, সিভিল সার্জন রামাপদ রায়, আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান লিনডা বাংলাদেশের কর্মকর্তা সুফিয়া আক্তার এবং পুলিশ ও রেলওয়ে কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে বেলা ১১টার দিকে শুরু হয় খালাস। ভারত থেকে ১০টি কনটেইনারে এসেছে এই তরল অক্সিজেন।

ডিসি ফারুক বলেন, ‘চলমান করোনা সংকটে আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীদের সেবার জন্য জরুরিভাবে এ অক্সিজেন ভারত থেকে সরকারি সহযোগিতায় আমদানি করেছে লিনডা বাংলাদেশ। এখান থেকে খালাসের পর তা দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে সরবরাহ করা হবে।’

ভারতের প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর এক বিবৃতিতে শনিবার বলা হয়েছে, প্রতিবেশী কোনো দেশের জন্য এটাই অক্সিজেন এক্সপ্রেসের প্রথম যাত্রা।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশে এলএমও পরিবহনের জন্য ভারতের দক্ষিণ-পূর্ব রেলওয়ের অধীনস্থ চক্রধরপুর বিভাগের টাটানগরে একটি ইনডেন্ট স্থাপন করা হয়। শনিবার সকাল ৯টা ২৫ মিনিটের দিকে ১০টি কনটেইনারে ২০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন ভরার কাজ শেষ হয়েছে। টাটানগর থেকে এটি রওনা দেয়।

চলতি বছরের ২৪ এপ্রিল ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে তরল অক্সিজেন সরবরাহের জন্য দেশটির রেলওয়ে অক্সিজেন এক্সপ্রেস সেবাটি চালু করে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে রাজ্যগুলোতে মেডিক্যাল অক্সিজেনের ব্যাপক ঘাটতি দেখা গিয়েছিল সেই সময়। গুজরাট, মহারাষ্ট্র, দিল্লিসহ বিভিন্ন রাজ্যে অক্সিজেনের অভাবে অনেক রোগীর মৃত্যু হয়। অক্সিজেনের অভাব মেটাতে ভারতীয় রেল অক্সিজেন এক্সপ্রেস চালু করে।

ইতোমধ্যে এই অক্সিজেন এক্সপ্রেস ভারতের ১৫ রাজ্যে কমপক্ষে ৩৫ হাজার মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন সরবরাহ করেছে।

প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর বিবৃতিতে বলা হয়, ভারতীয় রেলওয়ে বাংলাদেশে দ্রুততম সময়ের মধ্যে যত বেশি সম্ভব তরল অক্সিজেন সরবরাহের এ চেষ্টা অব্যাহত রাখবে।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

ভারত থেকে আসা ২০০ টন তরল অক্সিজেনের খালাস শুরু হয়েছে

প্রকাশিত: ০২:০৩:১৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১

আমিনুল ইসলাম ,সিরাজগঞ্জ সদর প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলস্টেশনে। ভারতের ঝাড়খন্ড প্রদেশের জামশেদপুর থেকে ইন্দো-বাংলা অক্সিজেন এক্সপ্রেস নামের ট্রেনটি বেনাপোল হয়ে রোববার সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে এই স্টেশনে পৌঁছেছে। এর আগে শনিবার রাত ১০টার দিকে ট্রেনটি বেনাপোল স্টেশনে পৌঁছায়।

রোববার (২৫ জুলাই) বেলা পৌনে ১১টার দিকে ১০ কন্টেইনার অক্সিজেন নিয়ে একটি ট্রেন বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম স্টেশনে প্রবেশ করেছে। সেখান থেকে খালাস করে লরিতে করে ঢাকা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে রেল ও স্বাস্থ্য অধিদফতর।

সেখানে জেলা প্রশাসক (ডিসি) ফারুক আহম্মদ, সিভিল সার্জন রামাপদ রায়, আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান লিনডা বাংলাদেশের কর্মকর্তা সুফিয়া আক্তার এবং পুলিশ ও রেলওয়ে কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে বেলা ১১টার দিকে শুরু হয় খালাস। ভারত থেকে ১০টি কনটেইনারে এসেছে এই তরল অক্সিজেন।

ডিসি ফারুক বলেন, ‘চলমান করোনা সংকটে আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীদের সেবার জন্য জরুরিভাবে এ অক্সিজেন ভারত থেকে সরকারি সহযোগিতায় আমদানি করেছে লিনডা বাংলাদেশ। এখান থেকে খালাসের পর তা দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে সরবরাহ করা হবে।’

ভারতের প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর এক বিবৃতিতে শনিবার বলা হয়েছে, প্রতিবেশী কোনো দেশের জন্য এটাই অক্সিজেন এক্সপ্রেসের প্রথম যাত্রা।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশে এলএমও পরিবহনের জন্য ভারতের দক্ষিণ-পূর্ব রেলওয়ের অধীনস্থ চক্রধরপুর বিভাগের টাটানগরে একটি ইনডেন্ট স্থাপন করা হয়। শনিবার সকাল ৯টা ২৫ মিনিটের দিকে ১০টি কনটেইনারে ২০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন ভরার কাজ শেষ হয়েছে। টাটানগর থেকে এটি রওনা দেয়।

চলতি বছরের ২৪ এপ্রিল ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে তরল অক্সিজেন সরবরাহের জন্য দেশটির রেলওয়ে অক্সিজেন এক্সপ্রেস সেবাটি চালু করে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে রাজ্যগুলোতে মেডিক্যাল অক্সিজেনের ব্যাপক ঘাটতি দেখা গিয়েছিল সেই সময়। গুজরাট, মহারাষ্ট্র, দিল্লিসহ বিভিন্ন রাজ্যে অক্সিজেনের অভাবে অনেক রোগীর মৃত্যু হয়। অক্সিজেনের অভাব মেটাতে ভারতীয় রেল অক্সিজেন এক্সপ্রেস চালু করে।

ইতোমধ্যে এই অক্সিজেন এক্সপ্রেস ভারতের ১৫ রাজ্যে কমপক্ষে ৩৫ হাজার মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন সরবরাহ করেছে।

প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর বিবৃতিতে বলা হয়, ভারতীয় রেলওয়ে বাংলাদেশে দ্রুততম সময়ের মধ্যে যত বেশি সম্ভব তরল অক্সিজেন সরবরাহের এ চেষ্টা অব্যাহত রাখবে।