ঢাকা ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পরিমনির বাসার সামনে ৩০ মিনিটেই সব মাস্ক বিক্রি

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০১:৪৫:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৫ অগাস্ট ২০২১
  • 50

দুই ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে টানাপোড়েনের সংসার। জীবীকা নির্বাহ করতে তাই মাস্ক বিক্রির ব্যবসা শুরু করেছেন তিনি। নাম মো. এমদাদুল হক। গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলায়।

প্রতিদিন তার টার্গেট থাকে কমপক্ষে দুই শতাধিক মাস্ক বিক্রি করা। বুধবার (৪ আগস্ট) সারাদিন বনানীর বিভিন্ন সড়কে ঘুরে ঘুরে মাস্ক বিক্রি করেছেন তিনি। কিন্তু সামান্য কিছু মাস্ক বিক্রি করতে পেরে হতাশায় ভুগছিলেন এমদাদুল।

বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে টিভিতে দেখেন- পরিমনিকে তার বাসা থেকে আটক করা হচ্ছে। পরিমনির বাসার সামনেই ভিড় জমিয়েছেন হাজারো মানুষ। এমন সংবাদ দেখে খুব দ্রুত হাতে মাস্কের ব্যাগটি নিয়ে হাজির পরীর বাসার গেটে। এরপর মাত্র ৩০ মিনিটেই তার সব মাস্ক বিক্রি হয়ে গেছে বলে জানান তিনি। পরে নিজের স্ত্রীর মাধ্যমে আরও কিছু মাস্ক বাসা থেকে নিয়ে এসেছেন তিনি।

এমদাদুল হক বলেন, ‘একটা ক্যান্টিনের টিভিতে দেখলাম নায়িকার বাসার সামনে অনেক মানুষ। তাকে নাকি আটক করা হয়েছে। তাই এখানে মাস্ক বেচতে আইছি। এক ব্যাগের সব বেইচা, এখনো এখান থেকে আরও ৮/১০ প্যাকেট বিক্রি করছি ‘

উল্লেখ্য, বেশ কিছু দিন ধরেই আলোচনায় রয়েছেন নায়িকা পরীমনি। কিছুদিন আগে ঢাকার সাভারের বোটক্লাবের ঘটনায় অভিযোগ করে আলোচনায় আসেন তিনি। সে ঘটনায় কয়েকজন গ্রেপ্তারও হয়েছিলেন। বর্তমানে তারা জামিনে রয়েছেন।

তবে ওই ঘটনার পরে একাধিক ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে পরীমনির বিরুদ্ধে। গত কয়েক দিন আগে পিয়াসা ও মৌ নামেরও দুইজন মডেল গ্রেপ্তার হয়েছেন। তাদের বাসা থেকেও বিপুল মাদক উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এরপর বিপুল পরিমান মাদকসহ চিত্রনায়িকা পরীমনিকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। ‘সুনির্দিষ্ট কিছু অভিযোগের’ ভিত্তিতে বাসায় অভিযানের পর আটক করা হয় তাকে।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

পরিমনির বাসার সামনে ৩০ মিনিটেই সব মাস্ক বিক্রি

প্রকাশিত: ০১:৪৫:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৫ অগাস্ট ২০২১

দুই ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে টানাপোড়েনের সংসার। জীবীকা নির্বাহ করতে তাই মাস্ক বিক্রির ব্যবসা শুরু করেছেন তিনি। নাম মো. এমদাদুল হক। গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলায়।

প্রতিদিন তার টার্গেট থাকে কমপক্ষে দুই শতাধিক মাস্ক বিক্রি করা। বুধবার (৪ আগস্ট) সারাদিন বনানীর বিভিন্ন সড়কে ঘুরে ঘুরে মাস্ক বিক্রি করেছেন তিনি। কিন্তু সামান্য কিছু মাস্ক বিক্রি করতে পেরে হতাশায় ভুগছিলেন এমদাদুল।

বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে টিভিতে দেখেন- পরিমনিকে তার বাসা থেকে আটক করা হচ্ছে। পরিমনির বাসার সামনেই ভিড় জমিয়েছেন হাজারো মানুষ। এমন সংবাদ দেখে খুব দ্রুত হাতে মাস্কের ব্যাগটি নিয়ে হাজির পরীর বাসার গেটে। এরপর মাত্র ৩০ মিনিটেই তার সব মাস্ক বিক্রি হয়ে গেছে বলে জানান তিনি। পরে নিজের স্ত্রীর মাধ্যমে আরও কিছু মাস্ক বাসা থেকে নিয়ে এসেছেন তিনি।

এমদাদুল হক বলেন, ‘একটা ক্যান্টিনের টিভিতে দেখলাম নায়িকার বাসার সামনে অনেক মানুষ। তাকে নাকি আটক করা হয়েছে। তাই এখানে মাস্ক বেচতে আইছি। এক ব্যাগের সব বেইচা, এখনো এখান থেকে আরও ৮/১০ প্যাকেট বিক্রি করছি ‘

উল্লেখ্য, বেশ কিছু দিন ধরেই আলোচনায় রয়েছেন নায়িকা পরীমনি। কিছুদিন আগে ঢাকার সাভারের বোটক্লাবের ঘটনায় অভিযোগ করে আলোচনায় আসেন তিনি। সে ঘটনায় কয়েকজন গ্রেপ্তারও হয়েছিলেন। বর্তমানে তারা জামিনে রয়েছেন।

তবে ওই ঘটনার পরে একাধিক ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে পরীমনির বিরুদ্ধে। গত কয়েক দিন আগে পিয়াসা ও মৌ নামেরও দুইজন মডেল গ্রেপ্তার হয়েছেন। তাদের বাসা থেকেও বিপুল মাদক উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এরপর বিপুল পরিমান মাদকসহ চিত্রনায়িকা পরীমনিকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। ‘সুনির্দিষ্ট কিছু অভিযোগের’ ভিত্তিতে বাসায় অভিযানের পর আটক করা হয় তাকে।