ঢাকা ০৯:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আদালতে সাদা শার্ট পড়া যুবককে জড়িয়ে ধরেন পরীমনি

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ১২:১৪:৩৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ অগাস্ট ২০২১
  • 37

চিত্রনায়িকা পরীমনি, তার সহযোগী প্রযোজক মো. নজরুল ইসলাম রাজসহ চারজনকে পৃথক দুই মাদক মামলায় চার দিন করে রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মামুনুর রশিদ তাদের বিরুদ্ধে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার রাত ৮টা ২২ মিনিটে আসামিদের ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করেন। পরীমনিকে কঠোর নিরাপত্তা দিয়ে আদালতে তোলেন পুলিশ সদস্যরা। এ সময়ে তাকে একনজর দেখার জন্য আইনজীবীরা ভিড় করেন। আদালত কক্ষ ভর্তি হয়ে যায় আইনজীবী ও উৎসুক লোকদের ভিড়ে। পরে পরীমনিকে এজলাসের আসামির ডকে তোলার সঙ্গে সঙ্গে সাদা শার্ট পরা এক যুবককে জড়িয়ে ধরেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ সদস্যরা ওই যুবককে সরিয়ে দেন। এরপরে নারী পুলিশ সদস্যরা পরীমনিকে ঘিরে ফেলেন।

মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বিচারক মো. মামুনুর রশিদ আসন গ্রহণ করলে আইনজীবীদের মধ্যে মামলা পরিচালনা নিয়ে বিবাদ বাধে। অনেকে পরীমনির মামলা করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। এ সময় ঢাকা বারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান খান রচি ও গোলাম কিবরিয়া জোবায়ের মামলা পরিচালনা করতে চান। অপরদিকে অ্যাডভোকেট নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভীও মামলা পরিচালনা করতে চান। আইনজীবীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও ঝগড়া-বিবাদ শুরু হয়। পরে বিচারক হট্টগোলের মধ্যে এজলাস ত্যাগ করেন।

বিচারক পরীমনিকে তার আইনজীবীর বিষয়ে বললে তিনি নীলাঞ্জনা রিফাতকে দিয়ে মামলা পরিচালনা করার কথা বলেন। এরপরে বিচারক আবার এজলাসে উঠলে শুনানি শুরু হয়। শুনানির সময় পরীমনি মুখে হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন। আদালতে পুরোটা সময়জুড়ে পরীমনিকে বিমর্ষ দেখা গেছে।

শুনানির শুরু থেকেই পরীমনি আদালতে নিশ্চুপ ছিলেন। তার চোখে মুখে হতাশার ভাব ছিল। এসময় তার সহযোগী রাজকে স্বাভাবিক থাকতে দেখা গেছে। আদালতে রাজ তার আইনজীবী এবং বিভিন্ন লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছেন কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে। কিন্তু পরীমন নিশ্চুপ ছিলেন।

শুনানি শেষ হয় রাত ৯টা ৮মিনিটে। শুনানি শেষে পরীমনিকে আদালতের এজলাস থেকে নিয়ে যাওয়া হয়। সূত্র জানায়, আদালতে ৪২ মিনিটের পুরোটাই চুপ ছিলেন পরীমনি।

এর আগে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে পরীমনি ও তার সহযোগী দীপু এবং প্রযোজক রাজ ও তার সহযোগী সবুজ আলীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮-এর কয়েকটি ধারায় পৃথক মামলা করা হয়।

এই অভিনেত্রীকে উপস্থিত করার আগেই আদালত পাড়ার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ।

উল্লেখ্য, বুধবার রাতে বনানীর বাসায় পৃথক অভিযান চালিয়ে পরীমনি ও রাজকে আটক করে র‍্যাব। অভিযানকালে তাদের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

আদালতে সাদা শার্ট পড়া যুবককে জড়িয়ে ধরেন পরীমনি

প্রকাশিত: ১২:১৪:৩৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ অগাস্ট ২০২১

চিত্রনায়িকা পরীমনি, তার সহযোগী প্রযোজক মো. নজরুল ইসলাম রাজসহ চারজনকে পৃথক দুই মাদক মামলায় চার দিন করে রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মামুনুর রশিদ তাদের বিরুদ্ধে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার রাত ৮টা ২২ মিনিটে আসামিদের ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করেন। পরীমনিকে কঠোর নিরাপত্তা দিয়ে আদালতে তোলেন পুলিশ সদস্যরা। এ সময়ে তাকে একনজর দেখার জন্য আইনজীবীরা ভিড় করেন। আদালত কক্ষ ভর্তি হয়ে যায় আইনজীবী ও উৎসুক লোকদের ভিড়ে। পরে পরীমনিকে এজলাসের আসামির ডকে তোলার সঙ্গে সঙ্গে সাদা শার্ট পরা এক যুবককে জড়িয়ে ধরেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ সদস্যরা ওই যুবককে সরিয়ে দেন। এরপরে নারী পুলিশ সদস্যরা পরীমনিকে ঘিরে ফেলেন।

মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বিচারক মো. মামুনুর রশিদ আসন গ্রহণ করলে আইনজীবীদের মধ্যে মামলা পরিচালনা নিয়ে বিবাদ বাধে। অনেকে পরীমনির মামলা করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। এ সময় ঢাকা বারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান খান রচি ও গোলাম কিবরিয়া জোবায়ের মামলা পরিচালনা করতে চান। অপরদিকে অ্যাডভোকেট নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভীও মামলা পরিচালনা করতে চান। আইনজীবীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও ঝগড়া-বিবাদ শুরু হয়। পরে বিচারক হট্টগোলের মধ্যে এজলাস ত্যাগ করেন।

বিচারক পরীমনিকে তার আইনজীবীর বিষয়ে বললে তিনি নীলাঞ্জনা রিফাতকে দিয়ে মামলা পরিচালনা করার কথা বলেন। এরপরে বিচারক আবার এজলাসে উঠলে শুনানি শুরু হয়। শুনানির সময় পরীমনি মুখে হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন। আদালতে পুরোটা সময়জুড়ে পরীমনিকে বিমর্ষ দেখা গেছে।

শুনানির শুরু থেকেই পরীমনি আদালতে নিশ্চুপ ছিলেন। তার চোখে মুখে হতাশার ভাব ছিল। এসময় তার সহযোগী রাজকে স্বাভাবিক থাকতে দেখা গেছে। আদালতে রাজ তার আইনজীবী এবং বিভিন্ন লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছেন কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে। কিন্তু পরীমন নিশ্চুপ ছিলেন।

শুনানি শেষ হয় রাত ৯টা ৮মিনিটে। শুনানি শেষে পরীমনিকে আদালতের এজলাস থেকে নিয়ে যাওয়া হয়। সূত্র জানায়, আদালতে ৪২ মিনিটের পুরোটাই চুপ ছিলেন পরীমনি।

এর আগে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে পরীমনি ও তার সহযোগী দীপু এবং প্রযোজক রাজ ও তার সহযোগী সবুজ আলীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮-এর কয়েকটি ধারায় পৃথক মামলা করা হয়।

এই অভিনেত্রীকে উপস্থিত করার আগেই আদালত পাড়ার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ।

উল্লেখ্য, বুধবার রাতে বনানীর বাসায় পৃথক অভিযান চালিয়ে পরীমনি ও রাজকে আটক করে র‍্যাব। অভিযানকালে তাদের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।