ঢাকা ১২:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আইনজীবীকে জড়িয়ে ধরে অঝোরে কেঁদেছেন পরীমণি

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০৩:১৮:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ অগাস্ট ২০২১
  • 45

মাদক মামলায় গ্রেপ্তার আলোচিত অভিনেত্রী পরীমণিকে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ৭দিনের রিমান্ড চাইলে ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালতের বিচারক।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) রাতে পরীমণিকে আদালতে নেয়া হয়েছে অ্যাম্বুলেন্সে। বনানী থানা থেকে রাত ৮টার দিকে রওনা দিয়ে ২৭ মিনিট পর ঢাকা মুখ্য মহানগর আদালত প্রাঙ্গণে পৌঁছায়।

আদালতের কাঠগড়ায় এক পরিচিত আইনজীবীকে জড়িয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত এই অভিনেত্রী। রাত ৮টা ৩৩ মিনিটে এজলাসে আসন গ্রহণ করেন বিচারক মো. মামুনুর রশীদ।

আদালত কক্ষে ওকালতনামায় পরীমণির সই নেয়া নিয়ে দুই পক্ষের আইনজীবীরা বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে বিচারক এজলাস থেকে নেমে যান। বিবাদ থামলে নীলাঞ্জনা রেফাত সুরভীর দেয়া ওকালতনামায় সই করেন পরীমণি।

অভিনেত্রীর পক্ষে শুনানি করন নীলাঞ্জনা রেফাত সুরভীসহ আরও কয়েকজন আইনজীবী। তারা রিমান্ড বাতিল এবং জামিন চেয়ে আবেদন করেন।

এর আগে র‌্যাব কার্যালয়ে পরীমণি ও রাজকে আটকের বিষয়ে ব্রিফিংয়ে বিস্তারিত জানানোর পর বনানী থানায় নিয়ে আসে বাহিনীটি।

র‌্যাব জানায়, অ্যালকোহলের চাহিদা মেটাতে পরীমণি নিজ বাসায় ‘মিনি বার’ স্থাপন করেছিলেন।

ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, ‘পরীমণির বাসার মিনি বারে বিভিন্ন বিদেশি মদ, ইয়াবা, এলএসডি ও আইস পাওয়া গেছে। পরীমণিকে জিজ্ঞাসাবাদে আমরা এ তথ্য জেনেছি।

‘আমরা জেনেছি, ২০১৬ সালে অ্যালকোহলে আসক্ত হন তিনি। চাহিদা মেটাতেই এই মিনি বার স্থাপন করেন। বিভিন্ন সময় তার বাসায় ডিজে পার্টির আয়োজন করতেন। এই মিনি বারে অ্যালকোহল সরবরাহ করতেন নজরুল ইসলাম রাজ।’

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

আইনজীবীকে জড়িয়ে ধরে অঝোরে কেঁদেছেন পরীমণি

প্রকাশিত: ০৩:১৮:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৬ অগাস্ট ২০২১

মাদক মামলায় গ্রেপ্তার আলোচিত অভিনেত্রী পরীমণিকে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ৭দিনের রিমান্ড চাইলে ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালতের বিচারক।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) রাতে পরীমণিকে আদালতে নেয়া হয়েছে অ্যাম্বুলেন্সে। বনানী থানা থেকে রাত ৮টার দিকে রওনা দিয়ে ২৭ মিনিট পর ঢাকা মুখ্য মহানগর আদালত প্রাঙ্গণে পৌঁছায়।

আদালতের কাঠগড়ায় এক পরিচিত আইনজীবীকে জড়িয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত এই অভিনেত্রী। রাত ৮টা ৩৩ মিনিটে এজলাসে আসন গ্রহণ করেন বিচারক মো. মামুনুর রশীদ।

আদালত কক্ষে ওকালতনামায় পরীমণির সই নেয়া নিয়ে দুই পক্ষের আইনজীবীরা বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে বিচারক এজলাস থেকে নেমে যান। বিবাদ থামলে নীলাঞ্জনা রেফাত সুরভীর দেয়া ওকালতনামায় সই করেন পরীমণি।

অভিনেত্রীর পক্ষে শুনানি করন নীলাঞ্জনা রেফাত সুরভীসহ আরও কয়েকজন আইনজীবী। তারা রিমান্ড বাতিল এবং জামিন চেয়ে আবেদন করেন।

এর আগে র‌্যাব কার্যালয়ে পরীমণি ও রাজকে আটকের বিষয়ে ব্রিফিংয়ে বিস্তারিত জানানোর পর বনানী থানায় নিয়ে আসে বাহিনীটি।

র‌্যাব জানায়, অ্যালকোহলের চাহিদা মেটাতে পরীমণি নিজ বাসায় ‘মিনি বার’ স্থাপন করেছিলেন।

ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, ‘পরীমণির বাসার মিনি বারে বিভিন্ন বিদেশি মদ, ইয়াবা, এলএসডি ও আইস পাওয়া গেছে। পরীমণিকে জিজ্ঞাসাবাদে আমরা এ তথ্য জেনেছি।

‘আমরা জেনেছি, ২০১৬ সালে অ্যালকোহলে আসক্ত হন তিনি। চাহিদা মেটাতেই এই মিনি বার স্থাপন করেন। বিভিন্ন সময় তার বাসায় ডিজে পার্টির আয়োজন করতেন। এই মিনি বারে অ্যালকোহল সরবরাহ করতেন নজরুল ইসলাম রাজ।’