ঢাকা ১২:২৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়তে পারলেই বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ শোধ হবে : এম এ জলিল

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০৭:১৮:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২১
  • 22

জাতীয় শোক দিবস-২০২১ ও ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহীদদের স্মরণে বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী আরেফ ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছিল মতিঝিল ওয়াকফ মসজিদ প্রাঙ্গণে আজ বিকাল ৪ ঘটিকায়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কাজী আরেফ ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও মতিঝিল ওয়াকফ মসজিদ এর সভাপতি কাজী মাসুদ আহমেদ। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এম এ জলিল। বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের সভাপতি মুশফিকুর রহমান মিন্টু, বরিশাল বিভাগ সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ স ম মোস্তফা কামাল, ওয়াকফ মসজিদের কর্মকর্তা ফখরুদ্দিন আহমেদ ও মাওলানা ইব্রাহীম প্রমুখ।

প্রধান অতিথির ভাষণে এম এ জলিল বলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের শোষণ শাসন নির্যাতন থেকে বাঙালী জাতিকে স্বাধীন দেশ উপহার দেওয়ার লক্ষে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন করে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও আদর্শ ছিল বাংলাদেশ হবে অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ক্ষুধা দারিদ্র ঘুষ দুর্নীতি সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ মুক্ত একটি আধুনিক বাংলাদেশ। কিন্তু ৭১, ৭৫ সালের ঘাতক এবং পাকিস্তানের দোষর দালালরা বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করে।

তারা চেয়েছিল হত্যা করে বাংলাদেশ হবে পাকিস্তানীদের আদর্শের একটি বাংলাদেশ। তা বাঙালি জাতি হতে দেন নাই। তারা বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২১ বৎসর আন্দোলন সংগ্রাম করে ক্ষমতা গ্রহণ করেন। এই ক্ষমতা গ্রহণের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে একটি আধুনিক গণতান্ত্রিক সম্প্রীতির বাংলাদেশ এবং উন্নয়নশীল বাংলাদেশ করার নিমিত্তে কাজ করে যাচ্ছেন এবং বঙ্গবন্ধুর হত্যা ও ৭১এর মানবতা বিরোধী ঘাতকদের বিচার করেছেন। সীমান্ত সমস্যার সমাধান, সমুদ্র সীমানা নির্ধারণ, পানি চুক্তি ও শান্তিচুক্তি করার মাধ্যমে দেশকে বিশ^মানের আধুনিক এবং পদ্মা সেতু, উড়াল রেল সেতু, পায়রা বন্দর, কর্ণফুলী টানেল নির্মাণের মাধ্যমে দেশকে একটি আধুনিক দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়তে পারলেই বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ শোধ হবে : এম এ জলিল

প্রকাশিত: ০৭:১৮:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২১

জাতীয় শোক দিবস-২০২১ ও ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহীদদের স্মরণে বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী আরেফ ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছিল মতিঝিল ওয়াকফ মসজিদ প্রাঙ্গণে আজ বিকাল ৪ ঘটিকায়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কাজী আরেফ ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও মতিঝিল ওয়াকফ মসজিদ এর সভাপতি কাজী মাসুদ আহমেদ। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এম এ জলিল। বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের সভাপতি মুশফিকুর রহমান মিন্টু, বরিশাল বিভাগ সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ স ম মোস্তফা কামাল, ওয়াকফ মসজিদের কর্মকর্তা ফখরুদ্দিন আহমেদ ও মাওলানা ইব্রাহীম প্রমুখ।

প্রধান অতিথির ভাষণে এম এ জলিল বলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের শোষণ শাসন নির্যাতন থেকে বাঙালী জাতিকে স্বাধীন দেশ উপহার দেওয়ার লক্ষে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন করে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও আদর্শ ছিল বাংলাদেশ হবে অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ক্ষুধা দারিদ্র ঘুষ দুর্নীতি সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ মুক্ত একটি আধুনিক বাংলাদেশ। কিন্তু ৭১, ৭৫ সালের ঘাতক এবং পাকিস্তানের দোষর দালালরা বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করে।

তারা চেয়েছিল হত্যা করে বাংলাদেশ হবে পাকিস্তানীদের আদর্শের একটি বাংলাদেশ। তা বাঙালি জাতি হতে দেন নাই। তারা বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২১ বৎসর আন্দোলন সংগ্রাম করে ক্ষমতা গ্রহণ করেন। এই ক্ষমতা গ্রহণের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে একটি আধুনিক গণতান্ত্রিক সম্প্রীতির বাংলাদেশ এবং উন্নয়নশীল বাংলাদেশ করার নিমিত্তে কাজ করে যাচ্ছেন এবং বঙ্গবন্ধুর হত্যা ও ৭১এর মানবতা বিরোধী ঘাতকদের বিচার করেছেন। সীমান্ত সমস্যার সমাধান, সমুদ্র সীমানা নির্ধারণ, পানি চুক্তি ও শান্তিচুক্তি করার মাধ্যমে দেশকে বিশ^মানের আধুনিক এবং পদ্মা সেতু, উড়াল রেল সেতু, পায়রা বন্দর, কর্ণফুলী টানেল নির্মাণের মাধ্যমে দেশকে একটি আধুনিক দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন।