ঢাকা ১০:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতীয় ঐক্যের ডাক দিলো তালেবান

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০৩:৫০:৫৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ অগাস্ট ২০২১
  • 661

জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছে তালেবান। যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত আশরাফ গানি সরকারকে হটিয়ে গত রোববার কাবুলে ক্ষমতা গ্রহণের পর এই প্রথম তারা ঐক্যের ডাক দিয়েছে। সেইসঙ্গে লোকজন যাতে দেশ ছেড়ে না পালান, সেজন্য আহ্বান জানাতে মসজিদের ইমামদেরও বলা হয়েছে। খবর বার্তাসংস্থা রয়টার্সের।

আফগানিস্তানে ক্ষমতাগ্রহণের পর কয়েক স্থানে পতাকা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে বিক্ষোভ ও সহিংসতা হয়। এতে জালালাবাদ ও আসাদাবাদে গুলিতে কমপক্ষে চারজন নিহত হন। আফগানদের একাংশ সাবেক গানি সরকারের পতাকা চাইলেও তালেবানরা সাদা-কালো পতাকা প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

ইতোমধ্যে তালেবানরা জানিয়েছে, তাদের শাসনে আফগানিস্তান কোনো গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হবে না। এটা ইসলামি শরিয়া আইনে চলবে। নারীর অধিকারও দেয়া হবে শরিয়ার ভিত্তিতে।

এ পরিস্থিতিতে বিপুল সংখ্যক আফগান দেশ ছাড়াতে বিমানবন্দরে জড়ো হচ্ছেন। শুক্রবার এক ন্যাটো কর্মকর্তা জানান, তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতাগ্রহণের পর এ পর্যন্ত ১৮ হাজারের বেশি মানুষকে কাবুল থেকে পশ্চিমা দেশগুলোতে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

কাবুল বিমানবন্দর থেকে বিশেষ করে পশ্চিমা কূটনীতিক, নাগরিক ও তাদের জন্য কাজ করা আফগানদের সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। ন্যাটো কর্মকর্তা জানান, কাবুল বিমানবন্দর থেকে প্রয়োজনে দ্বিগুণ হারে লোকজনকে সরিয়ে নেয়া হবে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই ন্যাটো কর্মকর্তা বলেন, হাজার হাজার মানুষ আফগানিস্তান ছাড়তে বিমানবন্দরে জড়ো হচ্ছেন। বৃহস্পতিবারও এ চিত্র দেখা গেছে। তবে তালেবানরা তাদের বাড়ি ফিরে যেতে বলছে।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

জাতীয় ঐক্যের ডাক দিলো তালেবান

প্রকাশিত: ০৩:৫০:৫৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ অগাস্ট ২০২১

জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছে তালেবান। যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত আশরাফ গানি সরকারকে হটিয়ে গত রোববার কাবুলে ক্ষমতা গ্রহণের পর এই প্রথম তারা ঐক্যের ডাক দিয়েছে। সেইসঙ্গে লোকজন যাতে দেশ ছেড়ে না পালান, সেজন্য আহ্বান জানাতে মসজিদের ইমামদেরও বলা হয়েছে। খবর বার্তাসংস্থা রয়টার্সের।

আফগানিস্তানে ক্ষমতাগ্রহণের পর কয়েক স্থানে পতাকা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে বিক্ষোভ ও সহিংসতা হয়। এতে জালালাবাদ ও আসাদাবাদে গুলিতে কমপক্ষে চারজন নিহত হন। আফগানদের একাংশ সাবেক গানি সরকারের পতাকা চাইলেও তালেবানরা সাদা-কালো পতাকা প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

ইতোমধ্যে তালেবানরা জানিয়েছে, তাদের শাসনে আফগানিস্তান কোনো গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হবে না। এটা ইসলামি শরিয়া আইনে চলবে। নারীর অধিকারও দেয়া হবে শরিয়ার ভিত্তিতে।

এ পরিস্থিতিতে বিপুল সংখ্যক আফগান দেশ ছাড়াতে বিমানবন্দরে জড়ো হচ্ছেন। শুক্রবার এক ন্যাটো কর্মকর্তা জানান, তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতাগ্রহণের পর এ পর্যন্ত ১৮ হাজারের বেশি মানুষকে কাবুল থেকে পশ্চিমা দেশগুলোতে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

কাবুল বিমানবন্দর থেকে বিশেষ করে পশ্চিমা কূটনীতিক, নাগরিক ও তাদের জন্য কাজ করা আফগানদের সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। ন্যাটো কর্মকর্তা জানান, কাবুল বিমানবন্দর থেকে প্রয়োজনে দ্বিগুণ হারে লোকজনকে সরিয়ে নেয়া হবে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই ন্যাটো কর্মকর্তা বলেন, হাজার হাজার মানুষ আফগানিস্তান ছাড়তে বিমানবন্দরে জড়ো হচ্ছেন। বৃহস্পতিবারও এ চিত্র দেখা গেছে। তবে তালেবানরা তাদের বাড়ি ফিরে যেতে বলছে।