ঢাকা ১২:০০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাবজি-ফ্রি ফায়ার গেম খেলতে থাকা ৪ কিশোর কাটা পড়ল ট্রেনে

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০৯:৪৪:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ অগাস্ট ২০২১
  • 30

কানে হেডফোন দিয়ে মোবাইলে গেম খেলায় ব্যস্ত ছিলেন চার কিশোর। তাদের চোখও ছিল মোবাইলের স্ক্রিনে, খেলছিলেন মোবাইল গেম পাবজি-ফ্রি ফায়ার। এই অবস্থায় তীব্র গতিতে ছুটে আসা ট্রেন কেড়ে নিল চারজনেরই প্রাণ। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়ার ধুমডাঙ্গী স্টেশন এলাকায়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমস একটি প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, রাতে ওই চার কিশোর রেল লাইনের উপর দিয়ে কানে হেডফোন দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল। তাদের চোখ ছিল মোবাইল ফোনে। মোবাইল গেম পাবজি, ফ্রি ফায়ারের মতো খেলায় ব্যস্ত ছিল তারা। তখন ডাউন লাইনে ছুটে আসছিল আগরতলা–দেওঘর এক্সপ্রেস। তা দেখতে পেয়ে অনেকে চিৎকার করছিলেন। ট্রেনও হুইসেল বাজিয়ে এগিয়ে আসছিল। কিন্তু তা ওই চার কিশোরের কানে কোনও কিছুই পৌঁছল না। মুহূর্তের মধ্যে চলন্ত ট্রেনে কাটা পড়ে ছিন্ন বিচ্ছিন হয়ে যায় চারটি দেহ।

মৃত কিশোররা সকলেই চোপড়ার কোনাগছ গ্রামের বাসিন্দা। তাদের পুরো পরিচয় এখনও জানা যায়নি। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে স্থানীয় রেল পুলিশ। কানে হেডফোন দিয়ে মোবাইল নিয়ে হাঁটা বিষয়ে এরআগে বহুবার সচেতনতামূলক পদক্ষেপ নেয়া হলেও এধরনের ঘটনা ঘটেই চলেছে বলে স্থানীয়দের দাবি।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

পাবজি-ফ্রি ফায়ার গেম খেলতে থাকা ৪ কিশোর কাটা পড়ল ট্রেনে

প্রকাশিত: ০৯:৪৪:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৩ অগাস্ট ২০২১

কানে হেডফোন দিয়ে মোবাইলে গেম খেলায় ব্যস্ত ছিলেন চার কিশোর। তাদের চোখও ছিল মোবাইলের স্ক্রিনে, খেলছিলেন মোবাইল গেম পাবজি-ফ্রি ফায়ার। এই অবস্থায় তীব্র গতিতে ছুটে আসা ট্রেন কেড়ে নিল চারজনেরই প্রাণ। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়ার ধুমডাঙ্গী স্টেশন এলাকায়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমস একটি প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, রাতে ওই চার কিশোর রেল লাইনের উপর দিয়ে কানে হেডফোন দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল। তাদের চোখ ছিল মোবাইল ফোনে। মোবাইল গেম পাবজি, ফ্রি ফায়ারের মতো খেলায় ব্যস্ত ছিল তারা। তখন ডাউন লাইনে ছুটে আসছিল আগরতলা–দেওঘর এক্সপ্রেস। তা দেখতে পেয়ে অনেকে চিৎকার করছিলেন। ট্রেনও হুইসেল বাজিয়ে এগিয়ে আসছিল। কিন্তু তা ওই চার কিশোরের কানে কোনও কিছুই পৌঁছল না। মুহূর্তের মধ্যে চলন্ত ট্রেনে কাটা পড়ে ছিন্ন বিচ্ছিন হয়ে যায় চারটি দেহ।

মৃত কিশোররা সকলেই চোপড়ার কোনাগছ গ্রামের বাসিন্দা। তাদের পুরো পরিচয় এখনও জানা যায়নি। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে স্থানীয় রেল পুলিশ। কানে হেডফোন দিয়ে মোবাইল নিয়ে হাঁটা বিষয়ে এরআগে বহুবার সচেতনতামূলক পদক্ষেপ নেয়া হলেও এধরনের ঘটনা ঘটেই চলেছে বলে স্থানীয়দের দাবি।