ঢাকা ১০:১৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দেয়ালে রক্ত দিয়ে লেখা ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০৬:৩৭:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ অগাস্ট ২০২১
  • 36

রাজধানীর কদমতলীর রায়েরবাগ থেকে জান্নাতুল ফেরদৌস (২০) নামের ওই যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে কদমতলী থানা পুলিশ। রোববার (২৯ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠিয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কদমতলী থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এস আই) শহীদুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলছেন জান্নাতুল ফেরদৌস। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থলে দেয়ালে রক্ত দিয়ে লেখা ছিল ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’।

এদেকে রিপন নামে জান্নাতুলের এক বন্ধু জানিয়েছে, তার (জান্নাতুল) একটি প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ওই মেয়ের নাম মীম। তিন মাস আগে প্রেমের সম্পর্ক ভেঙে যায়। তবে প্রেমে আঘাত পেয়েই জান্নাতুল পৃথিবীকে বিদায় জানাল কি না তা অবশ্য নিশ্চিত নয় রিপন।

রিপন বলেন, আমরা গত পরশু (২৭ আগস্ট) সিলেট থেকে ঘুরে এলাম। জান্নাতুলকে কখনও কোনো বিষয়ে হতাশাগ্রস্ত মনে হয়নি। গতকাল রাতেও আমাদের সাথে আড্ডা দিয়ে বাসায় গেল। প্রিয়জন হারানোর বেদনা সহ্য করতে পারছি না।

নিহতের পরিবার জানায়, জান্নাতুল একটি কাপড়ের দোকানে চাকরি করতেন। কী কারণে তিনি এমন কাজ করেছেন সে বিষয়ে কিছু বলতে পারেনি পরিবার।

নিহতের বাবা লিটন ব্যপারী বলেন, আমার একটাই ছেলে। সে গতকাল (শনিবার) রাতে বাসায় এসে ঘুমিয়ে পড়ে। আমি সকালে কাজে চলে যাই। জান্নাতুল এমনিতেই সকাল ১০টা পর্যন্ত ঘুমায়। ঘুম থেকে না উঠায় তার মা ডাকতে গেলে দেখে ফ্যানের সাথে তার দেহ ঝুলছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা কখনও কিছু বুঝতে পারিনি। আমাদের সঙ্গে তার কোনো বিষয় নিয়ে মনোমালিন্য বা কথা কাটাকাটি হয়নি।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

দেয়ালে রক্ত দিয়ে লেখা ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’

প্রকাশিত: ০৬:৩৭:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ অগাস্ট ২০২১

রাজধানীর কদমতলীর রায়েরবাগ থেকে জান্নাতুল ফেরদৌস (২০) নামের ওই যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে কদমতলী থানা পুলিশ। রোববার (২৯ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠিয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কদমতলী থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এস আই) শহীদুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলছেন জান্নাতুল ফেরদৌস। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থলে দেয়ালে রক্ত দিয়ে লেখা ছিল ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’।

এদেকে রিপন নামে জান্নাতুলের এক বন্ধু জানিয়েছে, তার (জান্নাতুল) একটি প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ওই মেয়ের নাম মীম। তিন মাস আগে প্রেমের সম্পর্ক ভেঙে যায়। তবে প্রেমে আঘাত পেয়েই জান্নাতুল পৃথিবীকে বিদায় জানাল কি না তা অবশ্য নিশ্চিত নয় রিপন।

রিপন বলেন, আমরা গত পরশু (২৭ আগস্ট) সিলেট থেকে ঘুরে এলাম। জান্নাতুলকে কখনও কোনো বিষয়ে হতাশাগ্রস্ত মনে হয়নি। গতকাল রাতেও আমাদের সাথে আড্ডা দিয়ে বাসায় গেল। প্রিয়জন হারানোর বেদনা সহ্য করতে পারছি না।

নিহতের পরিবার জানায়, জান্নাতুল একটি কাপড়ের দোকানে চাকরি করতেন। কী কারণে তিনি এমন কাজ করেছেন সে বিষয়ে কিছু বলতে পারেনি পরিবার।

নিহতের বাবা লিটন ব্যপারী বলেন, আমার একটাই ছেলে। সে গতকাল (শনিবার) রাতে বাসায় এসে ঘুমিয়ে পড়ে। আমি সকালে কাজে চলে যাই। জান্নাতুল এমনিতেই সকাল ১০টা পর্যন্ত ঘুমায়। ঘুম থেকে না উঠায় তার মা ডাকতে গেলে দেখে ফ্যানের সাথে তার দেহ ঝুলছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা কখনও কিছু বুঝতে পারিনি। আমাদের সঙ্গে তার কোনো বিষয় নিয়ে মনোমালিন্য বা কথা কাটাকাটি হয়নি।