ঢাকা ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অনুমোদন পেলে ১২ বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০২:০৪:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • 55

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) অনুমোদন পেলে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে। সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

১২ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়া হবে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে শিক্ষকদের টিকা দিয়েছি। অনেক শিক্ষার্থীও টিকা পেয়েছে। এ মাসে আড়াই কোটি টিকা পাবো। এতে টিকার কার্যক্রম আরও বেগবান হবে।’ জাহিদ মালেক বলেন, ‘এ ক্ষেত্রে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন লাগবে। আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছে আবেদন করেছি। অনুমোদন পেলে টিকা দিবো। কিছু দেশে এই বয়সীদের টিকা দিচ্ছে। সেটা নিজেদের প্রটোকল মেনে করছে।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘এ মাসে যে আড়াই কোটি টিকা আসছে, এর মধ্যে ২ কোটি সিনোফার্মের। আর বাকি ৫০ লাখ ফাইজারের। আমাদের যে কোভিড হাসপাতাল আছে এর মধ্যে ১৭ হাজার বেড ছিল। এর মধ্যে ১২/১৪ হাজার বেড খালি আছে। সে কারণে কোভিড হাসপাতালে অন্য রোগীদের জন্য বেড ছেড়ে দিচ্ছে।’

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

অনুমোদন পেলে ১২ বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে

প্রকাশিত: ০২:০৪:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) অনুমোদন পেলে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে। সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

১২ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়া হবে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে শিক্ষকদের টিকা দিয়েছি। অনেক শিক্ষার্থীও টিকা পেয়েছে। এ মাসে আড়াই কোটি টিকা পাবো। এতে টিকার কার্যক্রম আরও বেগবান হবে।’ জাহিদ মালেক বলেন, ‘এ ক্ষেত্রে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন লাগবে। আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছে আবেদন করেছি। অনুমোদন পেলে টিকা দিবো। কিছু দেশে এই বয়সীদের টিকা দিচ্ছে। সেটা নিজেদের প্রটোকল মেনে করছে।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘এ মাসে যে আড়াই কোটি টিকা আসছে, এর মধ্যে ২ কোটি সিনোফার্মের। আর বাকি ৫০ লাখ ফাইজারের। আমাদের যে কোভিড হাসপাতাল আছে এর মধ্যে ১৭ হাজার বেড ছিল। এর মধ্যে ১২/১৪ হাজার বেড খালি আছে। সে কারণে কোভিড হাসপাতালে অন্য রোগীদের জন্য বেড ছেড়ে দিচ্ছে।’