ঢাকা ০৬:৪৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যারা অত্যাচার-নিপীড়ন করে ক্ষমতায় থাকতে চায় তারা পাকিস্তানি এজেন্ট: আসিফ নজরুল

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০৮:৪৩:১৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • 48

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল বলেছেন, যারা পদে পদে ভিন্ন মতকে দমন করতে চায়, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ দেশের সকল সম্পদ লুট করতে চায়, যারা অত্যাচার-নিপীড়ন গুম করে ক্ষমতায় থাকতে চান আপনারা আসলে পাকিস্তানি এজেন্ট। কারণ পাকিস্তানি শাসকরা এটাই করতো। শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দের পরিচিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, যে অত্যাচার নিপিড়ন পাকিস্তানি শাসকরা করতো, ঠিক সেই অত্যাচার নিপিড়ন যখন বাংলাদেশের মানুষের ওপরে করে তারাই পাকিস্তানের প্রকৃত চেতনাবাহী। তারাই পাকিস্তানের উত্তরাধীকারি। আর যারা এটার প্রতিবাদ করে তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবাহী।

ছাত্র অধিকার পরিষদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, আমি আপনাদের কর্মসূচি দেখলাম খুবই ভালো লেগেছে। বিশেষ করে আপনারা যে গণরুমের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন। গণরুমকে আমি বলি এটা হচ্ছে একটা দাসত্ব, এটা হচ্ছে একটা জেলখানার মতো। যেই ছাত্রদের পথ ধরে, যেই ছাত্রদের হাত ধরে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিলো আজকে তাদের প্রত্যকটা হলে জেলখানা বানিয়ে আটকে রাখা হচ্ছে।

আসিফ নজরুল বলেন, আপনারা গণরুমের বিষয়ে কথা বলবেন এটা হচ্ছে আমার প্রত্যাশা। আপনারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বলবেন যে হলে আসন কে বরাদ্দ দেয়? যদি প্রভোস্ট বরাদ্দ না দেয়, তাহলে প্রভোস্ট যেন পদত্যাগ করে। যারা বরাদ্দ তাদের যেন প্রভোস্ট বানানো হয়।

তিনি বলেন, ভোট দেওয়ার অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য, ভোটের রায়কে প্রতিষ্ঠা করারা জন্য বঙ্গবন্ধু নেতৃত্বে বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধ হয়েছিল। যারা ভোটের অধিকার কেড়ে নেয় তারা হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সবচেয়ে বড় শত্রু। এটা আমি বানিয়ে বলছি না। আপনারা বঙ্গবন্ধুর সারা জীবনের ইতিহাস পড়ে দেখেন। ৭২ সালের সংবিধান পড়ে দেখেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, ঢাকসুর সাবেক ভিপি নূরুল হক নূর, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মো. রাশেদ, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের নব নির্বাচিত সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আদীব, সাংগঠনিক সম্পাদক মোল্যা রহমতুল্লাহ প্রমুখ।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

যারা অত্যাচার-নিপীড়ন করে ক্ষমতায় থাকতে চায় তারা পাকিস্তানি এজেন্ট: আসিফ নজরুল

প্রকাশিত: ০৮:৪৩:১৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল বলেছেন, যারা পদে পদে ভিন্ন মতকে দমন করতে চায়, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ দেশের সকল সম্পদ লুট করতে চায়, যারা অত্যাচার-নিপীড়ন গুম করে ক্ষমতায় থাকতে চান আপনারা আসলে পাকিস্তানি এজেন্ট। কারণ পাকিস্তানি শাসকরা এটাই করতো। শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দের পরিচিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, যে অত্যাচার নিপিড়ন পাকিস্তানি শাসকরা করতো, ঠিক সেই অত্যাচার নিপিড়ন যখন বাংলাদেশের মানুষের ওপরে করে তারাই পাকিস্তানের প্রকৃত চেতনাবাহী। তারাই পাকিস্তানের উত্তরাধীকারি। আর যারা এটার প্রতিবাদ করে তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবাহী।

ছাত্র অধিকার পরিষদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, আমি আপনাদের কর্মসূচি দেখলাম খুবই ভালো লেগেছে। বিশেষ করে আপনারা যে গণরুমের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন। গণরুমকে আমি বলি এটা হচ্ছে একটা দাসত্ব, এটা হচ্ছে একটা জেলখানার মতো। যেই ছাত্রদের পথ ধরে, যেই ছাত্রদের হাত ধরে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিলো আজকে তাদের প্রত্যকটা হলে জেলখানা বানিয়ে আটকে রাখা হচ্ছে।

আসিফ নজরুল বলেন, আপনারা গণরুমের বিষয়ে কথা বলবেন এটা হচ্ছে আমার প্রত্যাশা। আপনারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বলবেন যে হলে আসন কে বরাদ্দ দেয়? যদি প্রভোস্ট বরাদ্দ না দেয়, তাহলে প্রভোস্ট যেন পদত্যাগ করে। যারা বরাদ্দ তাদের যেন প্রভোস্ট বানানো হয়।

তিনি বলেন, ভোট দেওয়ার অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য, ভোটের রায়কে প্রতিষ্ঠা করারা জন্য বঙ্গবন্ধু নেতৃত্বে বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধ হয়েছিল। যারা ভোটের অধিকার কেড়ে নেয় তারা হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সবচেয়ে বড় শত্রু। এটা আমি বানিয়ে বলছি না। আপনারা বঙ্গবন্ধুর সারা জীবনের ইতিহাস পড়ে দেখেন। ৭২ সালের সংবিধান পড়ে দেখেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, ঢাকসুর সাবেক ভিপি নূরুল হক নূর, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মো. রাশেদ, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের নব নির্বাচিত সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আদীব, সাংগঠনিক সম্পাদক মোল্যা রহমতুল্লাহ প্রমুখ।