ঢাকা ০৬:৫৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘চাপ সৃষ্টি’ করতে ভারতে লেইন

বাণিজ্য, নিরাপত্তা এবং জলবায়ু আলোচনার জন্য ভারত সফরে রয়েছেন ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লেইন। সফরে ইউক্রেন যুদ্ধে নিরপেক্ষ অবস্থান পরিবর্তন এবং পশ্চিমা পদক্ষেপের সমান্তরালে চলতে ভারতের ওপর চাপ সৃষ্টির পরিকল্পনা রয়েছে তার।

বার্তা সংস্থা আলজাজিরার খবরে জানা যায়, স্থানীয় জলবায়ু পরিবর্তনের উদ্যোগ পরিদর্শন করতে ভারত সফর করছেন উরসুলা ভন ডার লেইন। ২৫ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া রাইসিনা ডায়লগের প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল তাঁকে।

২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া ইউক্রেনে মস্কোর ‘আগ্রাসনের’ প্রতিক্রিয়ায় নানাবিধ পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র এবং পশ্চিমারা। পশ্চিমাদের পদক্ষেপে অংশ নেয়নি ভারত।

পশ্চিমাদের প্রতিক্রিয়ায় ছিল রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞাও। আরোপিত জ্বালানী নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে রাশিয়ার কাছে থেকে বিশেষ মূল্যছাড়ে তেল ক্রয় করে নয়াদিল্লী। এমতাবস্থায় ভারতের ওপর নিষেধাজ্ঞার হুমকিও দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র।

ভারতকে ইঙ্গিত করে যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা দলিপ সিং বলেন, কোনও দেশ যেন রাশিয়াকে আর্থিক ভাবে সমর্থন না করে, সেরকম একটা পরিস্থিতি তৈরি করতে চাই আমরা। যদি কেউ রাশিয়ার পাশে দাঁড়ায়, তাহলে সেই দেশকে তার ফল ভুগতে হবে।

এমনকি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে রাশিয়ার ওপর গৃহীত নিন্দা প্রস্তাবের ভোটে অংশ নেয়নি দেশটি। এরপরই নয়াদিল্লীর ওপর ক্ষুণ্ণ হতে শুরু করে পশ্চিমারা।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

অনলাইন ডেস্ক

জনপ্রিয়

‘চাপ সৃষ্টি’ করতে ভারতে লেইন

প্রকাশিত: ০৭:৪১:১১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ এপ্রিল ২০২২

বাণিজ্য, নিরাপত্তা এবং জলবায়ু আলোচনার জন্য ভারত সফরে রয়েছেন ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লেইন। সফরে ইউক্রেন যুদ্ধে নিরপেক্ষ অবস্থান পরিবর্তন এবং পশ্চিমা পদক্ষেপের সমান্তরালে চলতে ভারতের ওপর চাপ সৃষ্টির পরিকল্পনা রয়েছে তার।

বার্তা সংস্থা আলজাজিরার খবরে জানা যায়, স্থানীয় জলবায়ু পরিবর্তনের উদ্যোগ পরিদর্শন করতে ভারত সফর করছেন উরসুলা ভন ডার লেইন। ২৫ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া রাইসিনা ডায়লগের প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল তাঁকে।

২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া ইউক্রেনে মস্কোর ‘আগ্রাসনের’ প্রতিক্রিয়ায় নানাবিধ পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র এবং পশ্চিমারা। পশ্চিমাদের পদক্ষেপে অংশ নেয়নি ভারত।

পশ্চিমাদের প্রতিক্রিয়ায় ছিল রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞাও। আরোপিত জ্বালানী নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে রাশিয়ার কাছে থেকে বিশেষ মূল্যছাড়ে তেল ক্রয় করে নয়াদিল্লী। এমতাবস্থায় ভারতের ওপর নিষেধাজ্ঞার হুমকিও দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র।

ভারতকে ইঙ্গিত করে যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা দলিপ সিং বলেন, কোনও দেশ যেন রাশিয়াকে আর্থিক ভাবে সমর্থন না করে, সেরকম একটা পরিস্থিতি তৈরি করতে চাই আমরা। যদি কেউ রাশিয়ার পাশে দাঁড়ায়, তাহলে সেই দেশকে তার ফল ভুগতে হবে।

এমনকি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে রাশিয়ার ওপর গৃহীত নিন্দা প্রস্তাবের ভোটে অংশ নেয়নি দেশটি। এরপরই নয়াদিল্লীর ওপর ক্ষুণ্ণ হতে শুরু করে পশ্চিমারা।