ঢাকা ০৭:০৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেন-রাশিয়ার শস্যচুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর আহ্বান

রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যে খাদ্য শস্য চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর ব্যাপারে ‘সার্বিক প্রচেষ্টা চালাতে’ জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস সকল পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক এ কথা জানিয়েছেন।

প্রাথমিক চুক্তিটি ১২০ দিন স্থায়ী হয়েছিল। কোনও পক্ষ আপত্তি না করলে আগামী ১৯ নভেম্বর চুক্তি নবায়নের নতুন মেয়াদ নির্ধারণ করা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন তিনি।

বিবৃতিতে ডুজারিক বলেন, ‘আমরা ব্ল্যাক সি গ্রেইন ইনিশিয়েটিভকে নবায়ন করার জন্য সার্বিক প্রচেষ্টা চালানোর এবং রাশিয়ার শস্য ও সার রপ্তানির ক্ষেত্রে থাকা যেকোন বাধা দ্রুত অপসারণসহ উভয় চুক্তিকে তাদের সম্পূর্ণভাবে বাস্তবায়ন করার আহ্বান জানাই।’

তিনি বলেন, ‘আমরা চ্যালেঞ্জগুলোকে অবমূল্যায়ন করি না, তবে আমরা জানি তারা সেগুলো অতিক্রম করতে পারবে।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, সরকার, শিপিং কোম্পানি, শস্য ও সার ব্যবসায়ী এবং সারা বিশ্বের কৃষকরা ভবিষ্যতের বিষয়ে এখন স্পষ্টতা খঁজছেন।’

জুলাইয়ে তুরস্ক ও জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যে খাদ্য শস্য চুক্তি হয়। নভেম্বরের শেষে এর মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। ওই সময় বলা হয়, সময় শেষ হয়ে যাওয়ার পর চুক্তির মেয়াদ আবারও বাড়ানো যাবে।

জাতিসংঘে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত ভ্যাসিলি নেবেনজিয়া বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) সাংবাদিকদের বলেন, মস্কো চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দেওয়ার আগে অবশ্যই রাশিয়ার রপ্তানির সুযোগ দেওয়া উচিত। তিনি বলেন, ‘আমি অনেক দিন ধরেই বলে আসছি যে এক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা একই রয়ে গেছে।’

সূত্র: বাসস

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

অনলাইন ডেস্ক

জনপ্রিয়

ইউক্রেন-রাশিয়ার শস্যচুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর আহ্বান

প্রকাশিত: ০৯:৩২:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২

রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যে খাদ্য শস্য চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর ব্যাপারে ‘সার্বিক প্রচেষ্টা চালাতে’ জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস সকল পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক এ কথা জানিয়েছেন।

প্রাথমিক চুক্তিটি ১২০ দিন স্থায়ী হয়েছিল। কোনও পক্ষ আপত্তি না করলে আগামী ১৯ নভেম্বর চুক্তি নবায়নের নতুন মেয়াদ নির্ধারণ করা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন তিনি।

বিবৃতিতে ডুজারিক বলেন, ‘আমরা ব্ল্যাক সি গ্রেইন ইনিশিয়েটিভকে নবায়ন করার জন্য সার্বিক প্রচেষ্টা চালানোর এবং রাশিয়ার শস্য ও সার রপ্তানির ক্ষেত্রে থাকা যেকোন বাধা দ্রুত অপসারণসহ উভয় চুক্তিকে তাদের সম্পূর্ণভাবে বাস্তবায়ন করার আহ্বান জানাই।’

তিনি বলেন, ‘আমরা চ্যালেঞ্জগুলোকে অবমূল্যায়ন করি না, তবে আমরা জানি তারা সেগুলো অতিক্রম করতে পারবে।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, সরকার, শিপিং কোম্পানি, শস্য ও সার ব্যবসায়ী এবং সারা বিশ্বের কৃষকরা ভবিষ্যতের বিষয়ে এখন স্পষ্টতা খঁজছেন।’

জুলাইয়ে তুরস্ক ও জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যে খাদ্য শস্য চুক্তি হয়। নভেম্বরের শেষে এর মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। ওই সময় বলা হয়, সময় শেষ হয়ে যাওয়ার পর চুক্তির মেয়াদ আবারও বাড়ানো যাবে।

জাতিসংঘে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত ভ্যাসিলি নেবেনজিয়া বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) সাংবাদিকদের বলেন, মস্কো চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দেওয়ার আগে অবশ্যই রাশিয়ার রপ্তানির সুযোগ দেওয়া উচিত। তিনি বলেন, ‘আমি অনেক দিন ধরেই বলে আসছি যে এক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা একই রয়ে গেছে।’

সূত্র: বাসস