ঢাকা ০৮:৫২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ড. মোস্তাফিজুর রহমান

বেশি চাপে নিম্ন ও মধ্যবিত্তরা

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত: ০৫:৪২:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • 195

সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগের (সিপিডি) সম্মানীয় ফেলো ড. মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, মানুষ এখন মহাবিপদে রয়েছে। যারা আগের মতো কেনাকাটা করতে চাচ্ছে তারা সঞ্চয় ভাঙছে। যাদের সঞ্চয় নেই, তারা চাহিদার তুলনায় ক্রয় কমাচ্ছে। এভাবেই তারা পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করছে। ফলে তাৎক্ষণিক জীবনমান যেমন কমছে, তেমনি সঞ্চয় কমে যাওয়ায় মধ্যমেয়াদি নেতিবাচক পদচিহ্নও রেখে যাচ্ছে। মানসিক একটি চাপ সৃষ্টি করছে। মানসিক স্বাস্থ্য, খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের ফলে একটি বড় অংশের মানুষের পুষ্টির অবক্ষয় হচ্ছে। অর্থাৎ অর্থনৈতিক চাপের পাশাপাশি মানসিক চাপেরও সৃষ্টি করছে। সবচেয়ে বেশি চাপে আছে নি¤œ ও মধ্যবিত্তরা।

সম্প্রতি ভোরের কাগজকে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বেশি চাপে আছে নি¤œ ও মধ্যবিত্তরা। মধ্যবিত্তের জীবনমান, ক্রয়ক্ষমতা এবং তাদের সঞ্চয়ের উপরে চাপ সৃষ্টি হয়েছে। গ্যাসের দাম বাড়ছে, পেট্রোলের দাম বাড়ছে। সেটার একটি অভিঘাত আসছে। দ্বিতীয়ত, আমদানির বাড়তি ব্যয়ের প্রভাব এবং বাজার মনিটরিংয়ের দুর্বলতার কারণেও হচ্ছে। এগুলোর সুযোগ নিচ্ছে একটি শ্রেণি।

তিনি বলেন, বৈশ্বিক বাজারে ইতোমধ্যে অনেক পণ্যের দাম কমতে শুরু করেছে। কিন্তু আমাদের দেশে যেহেতু টাকার অবমূল্যায়ন হয়েছে, সে কারণে আমদানিকৃত পণ্যের মূল্যস্ফীতি হচ্ছে। এছাড়া আমাদের দেশে নিয়ম হচ্ছে, কোনো পণ্যের দাম একবার বাড়লে সেখান থেকে আর কমে না। মূল্যস্ফীতি কমলেও যেটা যা বেড়েছিল, সেখান থেকে হয়তো অর্ধেক কমেছে। কিন্তু আগের জায়গায় আর আসে না। এজন্য মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, মুদ্রা ব্যবস্থা, বাজার ব্যবস্থাপনার দিকে নজর দিতে হবে। পাশাপাশি অবশ্যই প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জন্য সামাজিক সুরক্ষা খাতকে বাড়াতে হবে।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

অনলাইন ডেস্ক

জনপ্রিয়

ড. মোস্তাফিজুর রহমান

বেশি চাপে নিম্ন ও মধ্যবিত্তরা

প্রকাশিত: ০৫:৪২:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগের (সিপিডি) সম্মানীয় ফেলো ড. মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, মানুষ এখন মহাবিপদে রয়েছে। যারা আগের মতো কেনাকাটা করতে চাচ্ছে তারা সঞ্চয় ভাঙছে। যাদের সঞ্চয় নেই, তারা চাহিদার তুলনায় ক্রয় কমাচ্ছে। এভাবেই তারা পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করছে। ফলে তাৎক্ষণিক জীবনমান যেমন কমছে, তেমনি সঞ্চয় কমে যাওয়ায় মধ্যমেয়াদি নেতিবাচক পদচিহ্নও রেখে যাচ্ছে। মানসিক একটি চাপ সৃষ্টি করছে। মানসিক স্বাস্থ্য, খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের ফলে একটি বড় অংশের মানুষের পুষ্টির অবক্ষয় হচ্ছে। অর্থাৎ অর্থনৈতিক চাপের পাশাপাশি মানসিক চাপেরও সৃষ্টি করছে। সবচেয়ে বেশি চাপে আছে নি¤œ ও মধ্যবিত্তরা।

সম্প্রতি ভোরের কাগজকে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বেশি চাপে আছে নি¤œ ও মধ্যবিত্তরা। মধ্যবিত্তের জীবনমান, ক্রয়ক্ষমতা এবং তাদের সঞ্চয়ের উপরে চাপ সৃষ্টি হয়েছে। গ্যাসের দাম বাড়ছে, পেট্রোলের দাম বাড়ছে। সেটার একটি অভিঘাত আসছে। দ্বিতীয়ত, আমদানির বাড়তি ব্যয়ের প্রভাব এবং বাজার মনিটরিংয়ের দুর্বলতার কারণেও হচ্ছে। এগুলোর সুযোগ নিচ্ছে একটি শ্রেণি।

তিনি বলেন, বৈশ্বিক বাজারে ইতোমধ্যে অনেক পণ্যের দাম কমতে শুরু করেছে। কিন্তু আমাদের দেশে যেহেতু টাকার অবমূল্যায়ন হয়েছে, সে কারণে আমদানিকৃত পণ্যের মূল্যস্ফীতি হচ্ছে। এছাড়া আমাদের দেশে নিয়ম হচ্ছে, কোনো পণ্যের দাম একবার বাড়লে সেখান থেকে আর কমে না। মূল্যস্ফীতি কমলেও যেটা যা বেড়েছিল, সেখান থেকে হয়তো অর্ধেক কমেছে। কিন্তু আগের জায়গায় আর আসে না। এজন্য মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, মুদ্রা ব্যবস্থা, বাজার ব্যবস্থাপনার দিকে নজর দিতে হবে। পাশাপাশি অবশ্যই প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জন্য সামাজিক সুরক্ষা খাতকে বাড়াতে হবে।