ঢাকা ০৪:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রোজার প্রথম দিনেই কারওয়ান বাজারে অভিযান

পবিত্র মাহে রমজানে অসাধু ব্যবসায়ীদের মূল্যবৃদ্ধির পাঁয়তারা বন্ধে রোজার প্রথম দিনেই রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অভিযান চালিয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

শুক্রবার (২৪ মার্চ) বেলা পৌনে ১১টার দিকে অধিদফতরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের নেতৃত্বে ওই অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা কারওয়ান বাজারের কিচেন মার্কেট ঘুরে দেখেন এবং সরেজমিনে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে দ্রব্যমূল্যের পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত হন।

পরে অভিযানকালে সালাম নামের এক মাছ বিক্রেতাকে ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়াও আলমগীর নামে এক লেবু বিক্রেতাকে ৫০০ টাকা ছাড়াও হাসান নামে অপর এক লেবু বিক্রেতাকে ১০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযান শেষে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। ভোক্তার পরিচালক বলেন, দেশবাসীকে আমরা আশ্বস্ত করতে চাই- সরবরাহে কোনোপ্রকার কমতি নেই। তবে মূল্যে কেউ যদি কারসাজি করেন, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, আজ রমজান শুরু হয়েছে। এই রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য সারাদেশে আমাদের তদারকি চলছে। রাজধানী ঢাকায় মোট ১১টি টিম তদারকি করছে। এরমধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে চারটি টিম এবং আমাদের সাতটি টিম কাজ করছে। এছাড়া সারাদেশে আরও ৬৫টি টিম কাজ করছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের পরিচালক বলেন, বাজারে যদি এবার কোনো অনিয়ম হয়; তাহলে সংশ্লিষ্ট বাজার কমিটিকে দায়বদ্ধতার মধ্যে আনব। আমরা কারওয়ান বাজারে এসেছি, এখানে বেগুন একজন ৫০ টাকা এবং আরেকজন ৭০ টাকা বিক্রি করছেন। এটা তো হতে পারে না। যে ৭০ টাকা দরে বেগুন বিক্রি করছেন, তার কাগজপত্র আমরা দেখে আইন অনুযায়ী তাকে জরিমানা করেছি।

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, মাছ বাজারেও অনেকেই ক্রয় রশিদ সংগ্রহ করছেন না। তাই তাদের ক্রয় রশিদ রাখার জন্য নির্দেশনা দিয়েছি। আমি নিজে ওই বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে কথা বলেছি। আজকের মধ্যেই বিক্রেতাদের জন্য ক্রয় রশিদগুলো রাখার ব্যবস্থা করার জন্য বলা হয়েছে। এছাড়া ৬ টাকার পাইকারি লেবু, বিক্রি হচ্ছে ১০ থেকে ১২টাকা। এটা কিন্তু সমুচিত নয়।

এ সময় মুরগির বাজার সম্পর্কে তিনি বলেন, গতকাল ব্রয়লার মুরগির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে সেই দামে মুরগি বাজারে এখনো আসেনি। কিন্তু ইতোমধ্যে মুরগির দাম কেজিতে ১৫ টাকা কমেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- ২০২৩ সাল হবে আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য আমরা সবাই সম্বনিতভাবে কাজ করব। আর যারা সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করবেন, তাদের জন্য আমারা কঠোর ব্যবস্থা নেব।

অভিযানে অন্যদের মধ্যে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মন্ডলসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা অংশ নেন।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

অনলাইন ডেস্ক

জনপ্রিয়

রোজার প্রথম দিনেই কারওয়ান বাজারে অভিযান

প্রকাশিত: ০২:৫৩:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩

পবিত্র মাহে রমজানে অসাধু ব্যবসায়ীদের মূল্যবৃদ্ধির পাঁয়তারা বন্ধে রোজার প্রথম দিনেই রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অভিযান চালিয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

শুক্রবার (২৪ মার্চ) বেলা পৌনে ১১টার দিকে অধিদফতরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের নেতৃত্বে ওই অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা কারওয়ান বাজারের কিচেন মার্কেট ঘুরে দেখেন এবং সরেজমিনে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে দ্রব্যমূল্যের পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত হন।

পরে অভিযানকালে সালাম নামের এক মাছ বিক্রেতাকে ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়াও আলমগীর নামে এক লেবু বিক্রেতাকে ৫০০ টাকা ছাড়াও হাসান নামে অপর এক লেবু বিক্রেতাকে ১০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযান শেষে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। ভোক্তার পরিচালক বলেন, দেশবাসীকে আমরা আশ্বস্ত করতে চাই- সরবরাহে কোনোপ্রকার কমতি নেই। তবে মূল্যে কেউ যদি কারসাজি করেন, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, আজ রমজান শুরু হয়েছে। এই রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য সারাদেশে আমাদের তদারকি চলছে। রাজধানী ঢাকায় মোট ১১টি টিম তদারকি করছে। এরমধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে চারটি টিম এবং আমাদের সাতটি টিম কাজ করছে। এছাড়া সারাদেশে আরও ৬৫টি টিম কাজ করছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের পরিচালক বলেন, বাজারে যদি এবার কোনো অনিয়ম হয়; তাহলে সংশ্লিষ্ট বাজার কমিটিকে দায়বদ্ধতার মধ্যে আনব। আমরা কারওয়ান বাজারে এসেছি, এখানে বেগুন একজন ৫০ টাকা এবং আরেকজন ৭০ টাকা বিক্রি করছেন। এটা তো হতে পারে না। যে ৭০ টাকা দরে বেগুন বিক্রি করছেন, তার কাগজপত্র আমরা দেখে আইন অনুযায়ী তাকে জরিমানা করেছি।

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, মাছ বাজারেও অনেকেই ক্রয় রশিদ সংগ্রহ করছেন না। তাই তাদের ক্রয় রশিদ রাখার জন্য নির্দেশনা দিয়েছি। আমি নিজে ওই বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে কথা বলেছি। আজকের মধ্যেই বিক্রেতাদের জন্য ক্রয় রশিদগুলো রাখার ব্যবস্থা করার জন্য বলা হয়েছে। এছাড়া ৬ টাকার পাইকারি লেবু, বিক্রি হচ্ছে ১০ থেকে ১২টাকা। এটা কিন্তু সমুচিত নয়।

এ সময় মুরগির বাজার সম্পর্কে তিনি বলেন, গতকাল ব্রয়লার মুরগির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে সেই দামে মুরগি বাজারে এখনো আসেনি। কিন্তু ইতোমধ্যে মুরগির দাম কেজিতে ১৫ টাকা কমেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- ২০২৩ সাল হবে আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য আমরা সবাই সম্বনিতভাবে কাজ করব। আর যারা সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করবেন, তাদের জন্য আমারা কঠোর ব্যবস্থা নেব।

অভিযানে অন্যদের মধ্যে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মন্ডলসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা অংশ নেন।