ঢাকা ০৯:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাংলাদেশ বাস্তবে পরিণত হতো না: রবির ভিসি

সিরাজগঞ্জে তরুণ প্রজন্মের রাজনৈতিক ও মুক্ত লেখক দেলোয়ার এইচ রাইন’র প্রথম গ্রন্থ ‘চিরন্তন শেখ মুজিব’ প্রকাশনা উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে বুধবার (২২ মার্চ) সন্ধ্যায় শহীদ এম. মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে এ উৎসব করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) প্রফেসর ড. মোঃ শাহ্ আজম।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ শুধু প্রতিটি বাঙালিকে উজ্জীবিত করেছে এমনটি নয়। আজও তা বিশ্বের সকল নিপীড়িত, নির্যাতিত এবং শৃঙ্খলিত মানুষের মুক্তির প্রেরণা হিসেবে কার্যকর রয়েছে। এ ভাষণের মাধ্যমেই বঙ্গবন্ধু মৃত্যুঞ্জয়ী হয়েছেন। বাঙালিকে বিশ্বসভায় নতুন পরিচয়ে পরিচিত করেছেন। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী কর্তৃক ২৫শে মার্চের নিরীহ বাঙালির উপর নির্মম গণহত্যাকে তিনি আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দানের দাবি জানান।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকে ছাড়া বাংলাদেশ কখনো বাস্তবে পরিণত হতো না। বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সম্পর্কে আরো অনেক বেশি গবেষণা হওয়া প্রয়োজন। ‘চিরন্তন শেখ মুজিব’ গ্রন্থের লেখক দেলোয়ার হোসেন রাইনসহ অনুষ্ঠানে আগত অন্যান্য অতিথিদের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের রবির পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

ওই জোটের সভাপতি আসাদ উদ্দিন পবলুর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. কে এম হোসেন আলী হাসান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ তালুকদার, সাবেক এমপি সেলিনা বেগম স্বপ্না ও ‘চিরন্তন শেখ মুজিব’ এর লেখক দেলোয়ার হোসেন রাইন প্রমূখ।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

অনলাইন ডেস্ক

জনপ্রিয়

বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাংলাদেশ বাস্তবে পরিণত হতো না: রবির ভিসি

প্রকাশিত: ০২:৫৬:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩

সিরাজগঞ্জে তরুণ প্রজন্মের রাজনৈতিক ও মুক্ত লেখক দেলোয়ার এইচ রাইন’র প্রথম গ্রন্থ ‘চিরন্তন শেখ মুজিব’ প্রকাশনা উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে বুধবার (২২ মার্চ) সন্ধ্যায় শহীদ এম. মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে এ উৎসব করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) প্রফেসর ড. মোঃ শাহ্ আজম।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ শুধু প্রতিটি বাঙালিকে উজ্জীবিত করেছে এমনটি নয়। আজও তা বিশ্বের সকল নিপীড়িত, নির্যাতিত এবং শৃঙ্খলিত মানুষের মুক্তির প্রেরণা হিসেবে কার্যকর রয়েছে। এ ভাষণের মাধ্যমেই বঙ্গবন্ধু মৃত্যুঞ্জয়ী হয়েছেন। বাঙালিকে বিশ্বসভায় নতুন পরিচয়ে পরিচিত করেছেন। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী কর্তৃক ২৫শে মার্চের নিরীহ বাঙালির উপর নির্মম গণহত্যাকে তিনি আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দানের দাবি জানান।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকে ছাড়া বাংলাদেশ কখনো বাস্তবে পরিণত হতো না। বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সম্পর্কে আরো অনেক বেশি গবেষণা হওয়া প্রয়োজন। ‘চিরন্তন শেখ মুজিব’ গ্রন্থের লেখক দেলোয়ার হোসেন রাইনসহ অনুষ্ঠানে আগত অন্যান্য অতিথিদের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের রবির পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

ওই জোটের সভাপতি আসাদ উদ্দিন পবলুর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. কে এম হোসেন আলী হাসান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ তালুকদার, সাবেক এমপি সেলিনা বেগম স্বপ্না ও ‘চিরন্তন শেখ মুজিব’ এর লেখক দেলোয়ার হোসেন রাইন প্রমূখ।