ঢাকা ০৩:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাসন রাজার দেশে হাসান ‘রাজা’

প্রথম দৃশ্য- আয়ারল্যান্ডের ইনিংস শেষে মাঠ থেকে ড্রেসিংরুমের পথে বাংলাদেশ দল। সেখানে সবার সামনে হাসান মাহমুদ। ডানহাতে বলটি উঁচিয়ে ধরে আছেন, একের পর এক পড়ছে ফটো সাংবাদিকদের ক্যামেরার শাটার। হাসানের পিছে দাঁড়িয়ে করতালিতে অভিবাদন জানাচ্ছেন সতীর্থরা।

দ্বিতীয় দৃশ্য- মাঠের লড়াইয়ে সিরিজ জয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের হাত থেকে ট্রফি বুঝে নিয়েছেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। চ্যাম্পিয়ন লেখা সাইনবোর্ড সামনে রেখে উদযাপন গোটা দলের। কিন্তু এই সিরিজে ওয়ানডে অভিষেক হওয়া তাওহিদ হৃদয়কে নিয়ে সেই সাইনবোর্ডের সামনে ট্রফি হাতে হাসান।

কাল হাসানের আলোয় আলোকিত বাংলাদেশ। রান তাড়ায় নেমে রেকর্ড ১০ উইকেটের জয় পায় তামিমের দল। আইরিশদের ১০১ রানে গুটিয়ে দিতে ডানহাতি পেসার একাই নেন ৫ উইকেট। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তো বটেই, স্বীকৃত ক্রিকেটে এটিই হাসানের প্রথম ৫ উইকেট নেয়ার কীর্তি।

তবুও উদযাপনে ছিল না বাড়তি আয়োজন। এমনকি উইকেট পেয়েও ছিলেন ভাবলেশহীন। যারা হাসানকে চেনেন, জানেন, তাদের কাছে এই দৃশ্য অবশ্য নতুন নয়। কিন্তু কেন? তার জবাবে হাসান বলেন, ‘ব্যাটসম্যানকে আউট করার পর উদযাপন করলে তার মন খারাপ হবে, তাই করি না।’

বিনয়ী হাসান আলোচনার বাইরে থাকতেই বেশি পছন্দ করেন। তার অর্জনগুলোও থেকে যায় আড়ালে। এবার বিপিএলে বাঁহাতি স্পিনার তানভীর ইসলামের সমান ১৭ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হাসান। তবে তানভীরকে নিয়ে যেমন আলোচনা হয়েছে, হাসান ততটাই আড়ালে থেকে যান।

২০২০ সালে প্রথম বিপিএল খেলার সুযোগ পেয়ে ঢাকা প্লাটুনের জার্সিতে ১৩ ম্যাচে ১০ উইকেট সাফল্যের কথা না বললেও মুগ্ধ করে তার বোলিংয়ের ধরন। গতির সঙ্গে নিখুঁত লাইন-লেংথ আর সুইংয়ের বাজিমাত করে ডাক পান জাতীয় দলে। তবে পুরোনো চোট আবার ধাক্কা দেয়। পিঠের ব্যথার সঙ্গে যুদ্ধ চলেএক বছর। সে সময় আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়াসহ সব ধরনের ক্রিকেটের বাইরে ছিলেন হাসান।

হাসান ফিরেছেন, ফেরার মতো। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে একাদশে সুযোগ পাননি। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মোস্তাফিজুর রহমানের পরিবর্তে জায়গা পেলেও বৃষ্টির কারণে বল হাতে নিতে পারেননি। কাল তৃতীয় ওয়ানডেতে অনবদ্য বোলিংয়ে তাক লাগিয়েছেন। সিলেটের মেঘলা আবহাওয়ার ফায়দা নিয়ে নতুন কুকাবুরা হাতে তুলে দেখিয়েছেন কীভাবে সিমের ব্যবহার করতে হয়। তাতেই দিশেহারা আইরিশরা।

ম্যাচ শেষে সাফল্যের ভাগটা একা নিতে চাইলেন না হাসান, ‘আমরা পেসাররা শেষ কয়েক সপ্তাহ ধরে অনেক পরিশ্রম করেছি আমাদের কোচ অ্যালান ডোনাল্ডের (বাংলাদেশ দলের পেস বোলিং কোচ) সঙ্গে। ভুলত্রুটি আছে আমাদের সবার, আমরা চেষ্টা করছি দিনের পর দিন নিজেদের আরও উন্নতি করার।’

কাল আয়ারল্যান্ড তো বটেই, সঙ্গে গোটা বিশ্ব দেখল বাংলাদেশের পেস বোলিং ইউনিটের সামর্থ্য। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩৭ বছরে ৬৯২ ম্যাচে এই প্রথমবার প্রতিপক্ষের ১০ উইকেট তুলে জয় পায় বাংলাদেশ। হাসান ৫টি, তাসকিন আহমেদ ৩টি ও ইবাদত হোসেন নেন বাকি ২ উইকেট।

পেসারদের নিয়ে প্রশংসা ঝরল অধিনায়ক তামিমের কণ্ঠে, ‘ওরা দুর্দান্ত করেছে, অবিশ্বাস্য খেলেছে বললে ভুল হবে। তারা মাঠের বাইরে যে পরিমাণ পরিশ্রম করেছে, মাঠে এর ফলাফল পাচ্ছে। ওদের সাফল্য কোনো ফ্লুক নয়। তারা নেটে অনেক পরিশ্রম করে। এমন একটা পেস বোলিং ইউনিট থাকলে ভালো করা সহজ হয়ে যায়। তখন আপনি সব কন্ডিশনে ভালো প্রতিপক্ষ হয়ে ওঠেন।’

ম্যাচ শেষে ট্রফি নিয়ে উদযাপনের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করে তাসকিন লিখেছেন, ‘ক্যাবিনেটে আরও একটি ট্রফি।’ তার উত্তরেই যেননিজের ফেসবুক পেজে হাসান লিখলেন ‘আরও অনেক কিছু আসবে।’

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

অনলাইন ডেস্ক

জনপ্রিয়

হাসন রাজার দেশে হাসান ‘রাজা’

প্রকাশিত: ০৩:০১:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩

প্রথম দৃশ্য- আয়ারল্যান্ডের ইনিংস শেষে মাঠ থেকে ড্রেসিংরুমের পথে বাংলাদেশ দল। সেখানে সবার সামনে হাসান মাহমুদ। ডানহাতে বলটি উঁচিয়ে ধরে আছেন, একের পর এক পড়ছে ফটো সাংবাদিকদের ক্যামেরার শাটার। হাসানের পিছে দাঁড়িয়ে করতালিতে অভিবাদন জানাচ্ছেন সতীর্থরা।

দ্বিতীয় দৃশ্য- মাঠের লড়াইয়ে সিরিজ জয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের হাত থেকে ট্রফি বুঝে নিয়েছেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। চ্যাম্পিয়ন লেখা সাইনবোর্ড সামনে রেখে উদযাপন গোটা দলের। কিন্তু এই সিরিজে ওয়ানডে অভিষেক হওয়া তাওহিদ হৃদয়কে নিয়ে সেই সাইনবোর্ডের সামনে ট্রফি হাতে হাসান।

কাল হাসানের আলোয় আলোকিত বাংলাদেশ। রান তাড়ায় নেমে রেকর্ড ১০ উইকেটের জয় পায় তামিমের দল। আইরিশদের ১০১ রানে গুটিয়ে দিতে ডানহাতি পেসার একাই নেন ৫ উইকেট। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তো বটেই, স্বীকৃত ক্রিকেটে এটিই হাসানের প্রথম ৫ উইকেট নেয়ার কীর্তি।

তবুও উদযাপনে ছিল না বাড়তি আয়োজন। এমনকি উইকেট পেয়েও ছিলেন ভাবলেশহীন। যারা হাসানকে চেনেন, জানেন, তাদের কাছে এই দৃশ্য অবশ্য নতুন নয়। কিন্তু কেন? তার জবাবে হাসান বলেন, ‘ব্যাটসম্যানকে আউট করার পর উদযাপন করলে তার মন খারাপ হবে, তাই করি না।’

বিনয়ী হাসান আলোচনার বাইরে থাকতেই বেশি পছন্দ করেন। তার অর্জনগুলোও থেকে যায় আড়ালে। এবার বিপিএলে বাঁহাতি স্পিনার তানভীর ইসলামের সমান ১৭ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হাসান। তবে তানভীরকে নিয়ে যেমন আলোচনা হয়েছে, হাসান ততটাই আড়ালে থেকে যান।

২০২০ সালে প্রথম বিপিএল খেলার সুযোগ পেয়ে ঢাকা প্লাটুনের জার্সিতে ১৩ ম্যাচে ১০ উইকেট সাফল্যের কথা না বললেও মুগ্ধ করে তার বোলিংয়ের ধরন। গতির সঙ্গে নিখুঁত লাইন-লেংথ আর সুইংয়ের বাজিমাত করে ডাক পান জাতীয় দলে। তবে পুরোনো চোট আবার ধাক্কা দেয়। পিঠের ব্যথার সঙ্গে যুদ্ধ চলেএক বছর। সে সময় আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়াসহ সব ধরনের ক্রিকেটের বাইরে ছিলেন হাসান।

হাসান ফিরেছেন, ফেরার মতো। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে একাদশে সুযোগ পাননি। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মোস্তাফিজুর রহমানের পরিবর্তে জায়গা পেলেও বৃষ্টির কারণে বল হাতে নিতে পারেননি। কাল তৃতীয় ওয়ানডেতে অনবদ্য বোলিংয়ে তাক লাগিয়েছেন। সিলেটের মেঘলা আবহাওয়ার ফায়দা নিয়ে নতুন কুকাবুরা হাতে তুলে দেখিয়েছেন কীভাবে সিমের ব্যবহার করতে হয়। তাতেই দিশেহারা আইরিশরা।

ম্যাচ শেষে সাফল্যের ভাগটা একা নিতে চাইলেন না হাসান, ‘আমরা পেসাররা শেষ কয়েক সপ্তাহ ধরে অনেক পরিশ্রম করেছি আমাদের কোচ অ্যালান ডোনাল্ডের (বাংলাদেশ দলের পেস বোলিং কোচ) সঙ্গে। ভুলত্রুটি আছে আমাদের সবার, আমরা চেষ্টা করছি দিনের পর দিন নিজেদের আরও উন্নতি করার।’

কাল আয়ারল্যান্ড তো বটেই, সঙ্গে গোটা বিশ্ব দেখল বাংলাদেশের পেস বোলিং ইউনিটের সামর্থ্য। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩৭ বছরে ৬৯২ ম্যাচে এই প্রথমবার প্রতিপক্ষের ১০ উইকেট তুলে জয় পায় বাংলাদেশ। হাসান ৫টি, তাসকিন আহমেদ ৩টি ও ইবাদত হোসেন নেন বাকি ২ উইকেট।

পেসারদের নিয়ে প্রশংসা ঝরল অধিনায়ক তামিমের কণ্ঠে, ‘ওরা দুর্দান্ত করেছে, অবিশ্বাস্য খেলেছে বললে ভুল হবে। তারা মাঠের বাইরে যে পরিমাণ পরিশ্রম করেছে, মাঠে এর ফলাফল পাচ্ছে। ওদের সাফল্য কোনো ফ্লুক নয়। তারা নেটে অনেক পরিশ্রম করে। এমন একটা পেস বোলিং ইউনিট থাকলে ভালো করা সহজ হয়ে যায়। তখন আপনি সব কন্ডিশনে ভালো প্রতিপক্ষ হয়ে ওঠেন।’

ম্যাচ শেষে ট্রফি নিয়ে উদযাপনের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করে তাসকিন লিখেছেন, ‘ক্যাবিনেটে আরও একটি ট্রফি।’ তার উত্তরেই যেননিজের ফেসবুক পেজে হাসান লিখলেন ‘আরও অনেক কিছু আসবে।’