রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৭:২৬ পূর্বাহ্ন

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা : গুজব ও প্রতারকচক্র থেকে সাবধান

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত: রবিবার, ২৮ মার্চ, ২০২১

আগামী ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য ২০২০-২১ সেশনে মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের গুজব ও প্রতারকচক্র থেকে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের সাবধান থাকার আহ্বান জানিয়েছে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতর। রোববার (২৮ মার্চ) অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. এ কে এম আহসান হাবিব স্বাক্ষরিত এক সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে।

এসব কর্মকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের আওতায় আনা হবে বলেও সতর্কবার্তায় জানিয়েছে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতর।

সতর্কবার্তায় আরও বলা হয়, প্রতিবছর এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষাকে সামনে রেখে কিছু কুচক্রীমহল, দুর্নীতিবাজ ব্যক্তি বা গ্রুপ কোচিং সেন্টারের নামে বা ব্যক্তিগতভাবে অনলাইনের বিভিন্ন মাধ্যমে (ফেসবুক, মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ, ভাইবার ও ইমো) শতভাগ কমন সাজেশন- বলে গোপনে বড় অঙ্কের টাকা দাবি করে থাকে। মেধাবী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এভাবে অর্থ হাতিয়ে নেয় প্রতারকচক্র। এ কাজ অবশ্যই জনস্বার্থ পরিপন্থী।

এতে বলা হয়, মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা সবসময়ই সর্বোচ্চ স্বচ্ছতার সঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। সর্বোচ্চ স্বচ্ছতার সঙ্গে পরীক্ষা গ্রহণের ব্যাপারে সরকারের ঊর্ধ্বতন নীতিনির্ধারণী মহলও সজাগ রয়েছেন। সরকারের ভাবমূর্তি রক্ষায় সব ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যেই সকল মেডিকেল কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের নির্দেশনায় ওভারসাইট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বার্তায় বলা হয়, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরকে এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয় সবসময় নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতর অত্যন্ত দৃঢ়তার সঙ্গে জানাতে চায় যে, সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা গ্রহণের কার্যক্রম এগিয়ে চলেছে। ইতোমধ্যে সব আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে জনস্বার্থ পরিপন্থী অনৈতিক কর্মকাণ্ড রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজব ছড়ালে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের আওতায় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও উল্লেখ করা হয় সতর্কবার্তায়।

কেউ গুজব ছড়ালে স্বাস্থ্য অধিদফতর/স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের কন্ট্রোলরুম- টেলিফোন ০২২২২২৮৫৯৩৩, ০২২২২২৯৭২৫৩ এবং মোবাইল নম্বর ০১৭৫৯১১৪৪৮৮ নম্বরে এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে জানানোর অনুরোধ জানানো হয়। একইসঙ্গে প্রতারণার জালে পা না দিয়ে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করে পরীক্ষায় নিজ যোগ্যতা দেখাতে ছাত্রছাত্রীদের উপদেশ দেয় স্বাস্থ্য অধিদফতর।

এদিকে সারাদেশে এবার রেকর্ডসংখ্যক শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। এবছর এক লাখ ৮২ হাজার ৮৭৪ জন পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। এ সংখ্যা গত বছর ছিল ৭২ হাজারের কিছু বেশি।

৩ ফিট দূরত্ব রেখে বসবেন মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার্থীরা

আগামী ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশ নেবেন। তিন ফিট দূরত্ব রেখে আসনে বসবেন তারা। বুধবার (২৪ মার্চ) সচিবালয়ে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত এক সভা শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় স্বাস্থ্যবিধি যাতে মানা হয় সে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিন ফিট দূরত্ব রেখে পরীক্ষার্থীরা বসবেন। সবাইকে মাস্ক পরতে হবে, সেখানে স্যানিটাইজার থাকবে। ভেন্যুতে অন্য কাউকে ঢুকতে দেব না, অভিভাবকরা যাতে ভালো অবস্থায় থাকতে পারেন সে বিষয়গুলো আমরা নজরে এনেছি।

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা খুব গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রতিবছর আমরা পরীক্ষাটি নিচ্ছি। এবার এক লাখ ২২ হাজার পরীক্ষার্থী আবেদন করেছেন। সারা দেশে ৫৫টি কেন্দ্র আমরা নির্ধারণ করেছি, প্রয়োজন হলে কেন্দ্র বাড়ানো হবে।

গুজব প্রতিরোধের বিষয়ে তিনি বলেন, বিভিন্ন বাহিনীর কাছে বলেছি, যাতে গুজব না ছড়াতে পারে। তারা বলেছে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে। পরীক্ষার সময় কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। আমরা মনিটরিং সেল গঠন করেছি। কোনো সমস্যা দেখা দিলে সেলে যোগাযোগ করা যাবে এবং তারা সার্বিক ব্যবস্থা নেবে। কোচিং সেন্টার বন্ধ করা হবে এবং কোনো ফটোকপি মেশিন কেন্দ্রের আশপাশে থাকতে পারবে না। তাহলে আমরা সুন্দরভাবে পরীক্ষা নিতে পারব, সফলতার সাথে নিতে পারব।

মন্ত্রী বলেন, সুন্দরভাবে সব স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা কাজ করব। পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোতে ম্যাজিস্ট্রেটও থাকবেন এবং তারা সার্বিক বিষয়গুলো দেখবেন। কোনো সমস্যা হলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেবেন তারা।


এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ