রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন

স্বাস্থ্যবিধির নামে গণপরিবহনে ভাড়া নৈরাজ্য বন্ধ করুন: প্যাসেঞ্জার ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২১

করোনা মহামারিতে স্বাস্থ্যবিধি মানার নামে গণপরিবহনে রীতিমতো যে ভাড়া নৈরাজ্য চলছে তা অবিলম্বে বন্ধের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ প্যাসেঞ্জার ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল।

আজ ১৩ এপ্রিল ২০২১ মঙ্গলবার বাংলাদেশ প্যাসেঞ্জার ওয়েলফেয়ার কাউন্সিলের আহ্বায়ক মোহাম্মদ মোস্তফা, যুগ্ম আহ্বায়ক গোলাম ফারুক মজনু, জামাল শিকদার সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, “সরকার গত ৫ এপ্রিল থেকে দেশে লকডাউন ঘোষণার পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহনে এক সিট খালি রেখে ৬০% ভাড়া বৃদ্ধি করে। কিন্তু ৬০% ভাড়াবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত কি সরকার নির্ধারিত প্রতি কিঃ মিঃ ভাড়ার উপর নাকি রাস্তায় আদায়কৃত ভাড়ার উপর তা পরিষ্কার করা হয়নি। যেখানে ইতিমধ্যেই সিটিং ও ওয়েবিল এর নামে বাড়তি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে সেখানে এই ৬০% ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গণপরিবহনে ভাড়া নৈরাজ্য আরো বাড়িয়েছে। দেখা যাচ্ছে একই পরিবারের দুই জন সদস্য পাশাপাশি সিটে বসলেও তাদেরকে বাড়তি ৬০% ভাড়া দিতে হচ্ছে।”

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, “কোন গাড়িতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার নেই। হেলপার-ড্রাইভার মাস্ক থুতনিতে নামিয়ে রাখে। গাড়িতেই ধূমপান করেন। অর্ধেক সিট খালি রাখার কথা থাকলেও বাস ভরে যাত্রী নেন, অনেক সময় দাঁড়িয়েও যাত্রী নেন। যাত্রীরা গণপরিবহন সীমিত থাকায় গাদাগাদি করে বাসে উঠতে বাধ্য হন। যাত্রীদের দুর্ভোগের কথা বিবেচনায় নিয়ে পর্যাপ্ত গণপরিবহনের ব্যবস্থা না করেই সরকারের এ সিদ্ধান্ত যাত্রীদের জন্য হিতে বিপরীত হয়ে দেখা দিয়েছে।”

তারা আরো বলেন, “করোনা মহামারির কারণে পরিবহন খাতের জন্য যতগুলো নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তার মধ্যে মালিক-শ্রমিকরা শুধু ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্তই মানছেন অন্য কোন নির্দেশনাই মানছেন না। অবিলম্বে গণপরিবহনে ভাড়া নৈরাজ্য বন্ধ করা হোক। পাশাপাশি সুযোগসন্ধানী সিএনজি, মাইক্রোবাস, মোটরসাইকেল চালকরা মানুষকে জিম্মি করে যেভাবে কষ্টের অর্থ ডাকাতের মত হাতিয়ে নিচ্ছে তা বন্ধ করার দাবি জানাচ্ছি। একই সাথে গণপরিবনে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক রাখা সহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার প্রয়োজনীয় সুযোগসুবিধা সংযুক্ত করার আহ্বান জানাচ্ছি।”


এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ