ঢাকা ১০:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিতর্কিত কাণ্ডে আওয়ামী লীগের পদ হারালেন হেলেনা জাহাঙ্গীর

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০৯:৩৬:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১
  • 41

আওয়ামী লীগের নাম যুক্ত করে নতুন একটি সহযোগী সংগঠনের ঘোষণা দেওয়ায় দলের উপকমিটির সদস্যপদ হারালেন ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীর। শনিবার (২৪ জুলাই) আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

আওয়ামী লীগের নারীবিষয়ক উপকমিটি থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে বলে জানান নারীবিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি।

আওয়ামী লীগের একটি সহযোগী নতুন সংগঠন হিসেবে ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামে একটি সংগঠন তৈরি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার চালানো হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগের জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে নেতা বানানোর ঘোষণা দিয়ে ছবি পোস্ট করা হয়। নামসর্বস্ব সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি হেলেনা জাহাঙ্গীর আর সাধারণ সম্পাদক মাহবুব মনির। তাদের নামসংবলিত পোস্টারে ছেয়ে যায় ফেসবুক।

আওয়ামী লীগের নারীবিষয়ক উপকমিটি সদস্য ছিলেন দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইর পরিচালক পদে থাকা হেলেনা জাহাঙ্গীর। জয়যাত্রা গ্রুপের কর্ণধার হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজেকে আইপি টিভি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি হিসেবেও পরিচয় দেন।

সম্প্রতি ফেইসবুকে ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি সংগঠনের সভাপতি হিসেবে হেলেনা জাহাঙ্গীরের নাম আসে। সেই কারণেই তাকে উপকমিটির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি আরটিভি নিউজকে বলেন, ‘সে (হেলেনা) কোথা থেকে কী করে, তার কোনো ঠিক নেই। যখন আমরা তাকে নিয়েছিলাম, তখন তো এটা জেনেই নিয়েছিলাম যে আমাদের পরিবারের একজন সদস্য। এখন যদি সে নিজে নিজেই নেতা হয়ে যায়, তাহলে আমরা কী করব?’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত এইচ এম এরশাদের সঙ্গে হেলেনা জাহাঙ্গীরের পুরনো ছবি ফেইসবুকে ছড়িয়েছে। এ বিষয়ে হেলেনা জাহাঙ্গীর লিখেছেন, খালেদা জিয়া ও অন্যান্যদের সাথে যে ছবিগুলা ভাইরাল হচ্ছে সেটা বিয়েতে এসেছিল তখন তোলা ছবি এবং এই ছবিগুলো আমি নিজেই ফেইসবুকে দিয়েছিলাম।

চাকরিজীবী লীগে সম্পৃক্ততা অস্বীকার না করে তিনি বলেন, আমি চাকরিজীবী লীগের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিলাম না। আমাকে এই কমিটিতে সভাপতি করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তাই অনেকেই ফেইসবুকে দিয়েছে। যেহেতু আমাকে সভাপতি বানানোর কথা ছিল, সেই হিসেবে কেউ হয়তো বা দিয়েছেন।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

বিতর্কিত কাণ্ডে আওয়ামী লীগের পদ হারালেন হেলেনা জাহাঙ্গীর

প্রকাশিত: ০৯:৩৬:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১

আওয়ামী লীগের নাম যুক্ত করে নতুন একটি সহযোগী সংগঠনের ঘোষণা দেওয়ায় দলের উপকমিটির সদস্যপদ হারালেন ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীর। শনিবার (২৪ জুলাই) আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

আওয়ামী লীগের নারীবিষয়ক উপকমিটি থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে বলে জানান নারীবিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি।

আওয়ামী লীগের একটি সহযোগী নতুন সংগঠন হিসেবে ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামে একটি সংগঠন তৈরি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার চালানো হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগের জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে নেতা বানানোর ঘোষণা দিয়ে ছবি পোস্ট করা হয়। নামসর্বস্ব সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি হেলেনা জাহাঙ্গীর আর সাধারণ সম্পাদক মাহবুব মনির। তাদের নামসংবলিত পোস্টারে ছেয়ে যায় ফেসবুক।

আওয়ামী লীগের নারীবিষয়ক উপকমিটি সদস্য ছিলেন দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইর পরিচালক পদে থাকা হেলেনা জাহাঙ্গীর। জয়যাত্রা গ্রুপের কর্ণধার হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজেকে আইপি টিভি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি হিসেবেও পরিচয় দেন।

সম্প্রতি ফেইসবুকে ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি সংগঠনের সভাপতি হিসেবে হেলেনা জাহাঙ্গীরের নাম আসে। সেই কারণেই তাকে উপকমিটির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি আরটিভি নিউজকে বলেন, ‘সে (হেলেনা) কোথা থেকে কী করে, তার কোনো ঠিক নেই। যখন আমরা তাকে নিয়েছিলাম, তখন তো এটা জেনেই নিয়েছিলাম যে আমাদের পরিবারের একজন সদস্য। এখন যদি সে নিজে নিজেই নেতা হয়ে যায়, তাহলে আমরা কী করব?’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত এইচ এম এরশাদের সঙ্গে হেলেনা জাহাঙ্গীরের পুরনো ছবি ফেইসবুকে ছড়িয়েছে। এ বিষয়ে হেলেনা জাহাঙ্গীর লিখেছেন, খালেদা জিয়া ও অন্যান্যদের সাথে যে ছবিগুলা ভাইরাল হচ্ছে সেটা বিয়েতে এসেছিল তখন তোলা ছবি এবং এই ছবিগুলো আমি নিজেই ফেইসবুকে দিয়েছিলাম।

চাকরিজীবী লীগে সম্পৃক্ততা অস্বীকার না করে তিনি বলেন, আমি চাকরিজীবী লীগের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিলাম না। আমাকে এই কমিটিতে সভাপতি করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তাই অনেকেই ফেইসবুকে দিয়েছে। যেহেতু আমাকে সভাপতি বানানোর কথা ছিল, সেই হিসেবে কেউ হয়তো বা দিয়েছেন।