ঢাকা ০৯:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘পরিস্থিতি বিপজ্জনক’, কাবুলে ফের হামলার আশঙ্কা

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ১১:২৩:০৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৯ অগাস্ট ২০২১
  • 37

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আরেকটি হামলার জোরালো সম্ভাবনা রয়েছে। সামরিক কমান্ডাররা তাকে জানিয়েছেন, রোববারই (২৯ আগস্ট) এই হামলা হতে পারে। সুনির্দিষ্ট ও বিশ্বাসযোগ্য হুমকি থাকায় মার্কিন নাগরিকদের ওই এলাকা এড়িয়ে চলার জন্য সতর্ক করে দিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর। খবর বিবিসির।

শনিবার (২৮ আগস্ট) এক বিবৃতিতে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, জঘন্য হামলার জন্য দায়ীদের চরম মূল্য দিতে হবে।আফগান ভূখণ্ডের পরিস্থিতি সত্যিই বিপজ্জনক। কাবুল বিমানবন্দরে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা এখনও অনেক বেশি। মার্কিন সামরিক বাহিনীর কমান্ডাররা আমাকে জানিয়েছেন যে, আগামী ২৪ থেকে ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে সেখানে (কাবুল বিমানবন্দরে) ফের হামলার উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে।

প্রয়োজনে আইএস এর বিরুদ্ধে প্রয়োজনে আরো হামলা চালানো হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে কাবুল বিমানবন্দরে মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি কমানো হয়েছে। শনিবারই নাগরিক, কূটনৈতিক ও সেনাদের নিয়ে কাবুল ছেড়েছে বৃটেনের শেষ ফ্লাইট। তবে কাবুলে এখনো উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করছে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাজ্যের সৈন্য, কূটনৈতিক এবং কর্মকর্তাদের নিয়ে শেষ ফ্লাইটটি কাবুল ছেড়ে গেছে। গত বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) সন্ধ্যায় কাবুল বিমানবন্দরের আবে ফটকে জোড়া বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) খোরাসান প্রদেশ শাখা আইএস-কের ভয়াবহ বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৭৫ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন আরও দেড় শতাধিক মানুষ।

অন্যদিকে কাবুল বিমানবন্দরের আশপাশের এলাকায় তল্লাশি চৌকি বাড়িয়েছে তালেবান। দুই সপ্তাহ আগে বিমান চালুর পর থেকে এখন পর্যন্ত আফগান ও বিদেশি নাগরিক মিলিয়ে ১ লাখ ১০ হাজারের বেশি মানুষকে সরানো হয়েছে।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

‘পরিস্থিতি বিপজ্জনক’, কাবুলে ফের হামলার আশঙ্কা

প্রকাশিত: ১১:২৩:০৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৯ অগাস্ট ২০২১

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আরেকটি হামলার জোরালো সম্ভাবনা রয়েছে। সামরিক কমান্ডাররা তাকে জানিয়েছেন, রোববারই (২৯ আগস্ট) এই হামলা হতে পারে। সুনির্দিষ্ট ও বিশ্বাসযোগ্য হুমকি থাকায় মার্কিন নাগরিকদের ওই এলাকা এড়িয়ে চলার জন্য সতর্ক করে দিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর। খবর বিবিসির।

শনিবার (২৮ আগস্ট) এক বিবৃতিতে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, জঘন্য হামলার জন্য দায়ীদের চরম মূল্য দিতে হবে।আফগান ভূখণ্ডের পরিস্থিতি সত্যিই বিপজ্জনক। কাবুল বিমানবন্দরে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা এখনও অনেক বেশি। মার্কিন সামরিক বাহিনীর কমান্ডাররা আমাকে জানিয়েছেন যে, আগামী ২৪ থেকে ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে সেখানে (কাবুল বিমানবন্দরে) ফের হামলার উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে।

প্রয়োজনে আইএস এর বিরুদ্ধে প্রয়োজনে আরো হামলা চালানো হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে কাবুল বিমানবন্দরে মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি কমানো হয়েছে। শনিবারই নাগরিক, কূটনৈতিক ও সেনাদের নিয়ে কাবুল ছেড়েছে বৃটেনের শেষ ফ্লাইট। তবে কাবুলে এখনো উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করছে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাজ্যের সৈন্য, কূটনৈতিক এবং কর্মকর্তাদের নিয়ে শেষ ফ্লাইটটি কাবুল ছেড়ে গেছে। গত বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) সন্ধ্যায় কাবুল বিমানবন্দরের আবে ফটকে জোড়া বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) খোরাসান প্রদেশ শাখা আইএস-কের ভয়াবহ বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৭৫ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন আরও দেড় শতাধিক মানুষ।

অন্যদিকে কাবুল বিমানবন্দরের আশপাশের এলাকায় তল্লাশি চৌকি বাড়িয়েছে তালেবান। দুই সপ্তাহ আগে বিমান চালুর পর থেকে এখন পর্যন্ত আফগান ও বিদেশি নাগরিক মিলিয়ে ১ লাখ ১০ হাজারের বেশি মানুষকে সরানো হয়েছে।