ঢাকা ০৭:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পরীমণির জামিনের কারণ ‘ভার্টিগো’ রোগ

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ০৭:০৭:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ অগাস্ট ২০২১
  • 51

ঢাকাই সিনেমার নায়িকা পরীমণির বাসায় তল্লাশি চালিয়ে মাদক দ্রব্য ও মদ পাওয়ায় তাকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এরপর মাদক মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। তবে আজ মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) পরীমণির ভার্টিগো (উচ্চতাভীতি) রোগসহ কয়েকটি কারণে তার জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কেএম ইমরুল কায়েশ।

আদালত আদেশে উল্লেখ করেন, যেহেতু পরীমণি একজন নারী এবং তিনি অসুস্থ সেই বিবেচনায় তাকে জামিন দেয়া হলো। এছাড়া তাকে রিমান্ডে দিয়ে কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। কিন্তু রিমান্ড প্রতিবেদনে তার সংশ্লিষ্টতা সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে পরীমণির আইনজীবী মজিবুর রহমান জামিনের আবেদন শুনানি করেন। শুনানিতে তিনি বলেন, পরীমণি বাংলাদেশের বিশিষ্ট নাগরিক। তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ। তার ভার্টিগো (উচ্চতাভীতি) রোগ রয়েছে।

আইনজীবী আদালতকে আরও বলেন, পরীমণি বাংলাদেশের প্রথম শ্রেণির চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। তিনি জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত। অনেক সিনেমার সঙ্গে তিনি যুক্ত। বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি চুক্তিবদ্ধ। তিনি আটক ঢাকায় পেশাগতভাবে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত। তাকে মাদক মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। তাকে বেআইনিভাবে কয়েক দফা রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। তাঁকে আটক রাখা ও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়টা হাইকোর্টেও চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষে মহানগর দায়রা আদালতের পিপি আব্দুল্লাহ আবু জামিনের বিরোধিতা করেন। আদালত উভয় পক্ষের শুনানি শেষে পরীমণিকে জামিনের আদেশ দেন।

আদেশের পর পরীমণির আইনজীবী মজিবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, এই জামিন আদেশের ফলে পরীমণির কারাগার থেকে মুক্তি পেতে কোনো বাধা নেই।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

পরীমণির জামিনের কারণ ‘ভার্টিগো’ রোগ

প্রকাশিত: ০৭:০৭:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ অগাস্ট ২০২১

ঢাকাই সিনেমার নায়িকা পরীমণির বাসায় তল্লাশি চালিয়ে মাদক দ্রব্য ও মদ পাওয়ায় তাকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এরপর মাদক মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। তবে আজ মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) পরীমণির ভার্টিগো (উচ্চতাভীতি) রোগসহ কয়েকটি কারণে তার জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কেএম ইমরুল কায়েশ।

আদালত আদেশে উল্লেখ করেন, যেহেতু পরীমণি একজন নারী এবং তিনি অসুস্থ সেই বিবেচনায় তাকে জামিন দেয়া হলো। এছাড়া তাকে রিমান্ডে দিয়ে কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। কিন্তু রিমান্ড প্রতিবেদনে তার সংশ্লিষ্টতা সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে পরীমণির আইনজীবী মজিবুর রহমান জামিনের আবেদন শুনানি করেন। শুনানিতে তিনি বলেন, পরীমণি বাংলাদেশের বিশিষ্ট নাগরিক। তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ। তার ভার্টিগো (উচ্চতাভীতি) রোগ রয়েছে।

আইনজীবী আদালতকে আরও বলেন, পরীমণি বাংলাদেশের প্রথম শ্রেণির চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। তিনি জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত। অনেক সিনেমার সঙ্গে তিনি যুক্ত। বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি চুক্তিবদ্ধ। তিনি আটক ঢাকায় পেশাগতভাবে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত। তাকে মাদক মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। তাকে বেআইনিভাবে কয়েক দফা রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। তাঁকে আটক রাখা ও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়টা হাইকোর্টেও চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষে মহানগর দায়রা আদালতের পিপি আব্দুল্লাহ আবু জামিনের বিরোধিতা করেন। আদালত উভয় পক্ষের শুনানি শেষে পরীমণিকে জামিনের আদেশ দেন।

আদেশের পর পরীমণির আইনজীবী মজিবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, এই জামিন আদেশের ফলে পরীমণির কারাগার থেকে মুক্তি পেতে কোনো বাধা নেই।