ঢাকা ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কমছে যমুনা নদীর পানি, কৃষির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

  • Golam Faruk
  • প্রকাশিত: ১২:০৪:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • 49

সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি দ্রুত গতিতে কমছে। ফলে জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় বন্যাকবলিত মানুষ বাড়ি ফিরতে শুরু করলেও এ বন্যায় নষ্ট হয়েছে ব্যাপক ফসলি জমি। আজ শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে যমুনা নদীর পানি সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ পয়েন্টে ১৩ সেন্টিমিটার কমে বিপদসীমার ৩৬ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। জেলার কাজিপুর, সদর, বেলকুচি, চৌহালী ও শাহজাদপুর উপজেলায় অন্তত ৪০টি ইউনিয়নের পানিবন্দি মানুষ নিজ বাড়িতে ফিরে যাচ্ছে।

এদিকে পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে দৃশ্যমান হচ্ছে বন্যার ক্ষয়ক্ষতি। চলতি বন্যায় জেলার কৃষকদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বন্যার পানিতে নষ্ট হয়েছে ৮ হাজার ৯৫৬ হেক্টর জমির রোপা ও বোনা আমন, বীজতলা, সবজি, আখ ও কলার আবাদ। এতে লোকসানের মুখে পড়েছে ৭২ হাজার ৫২ জন কৃষক।

সিরাজগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (ডিডি) আবু হানিফ  জানান, এবার বন্যায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় কৃষির কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ব্যাহত হবে। ইতোমধ্যেই ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করা হচ্ছে তাদের প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা হবে।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

Golam Faruk

জনপ্রিয়

কমছে যমুনা নদীর পানি, কৃষির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

প্রকাশিত: ১২:০৪:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১

সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি দ্রুত গতিতে কমছে। ফলে জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় বন্যাকবলিত মানুষ বাড়ি ফিরতে শুরু করলেও এ বন্যায় নষ্ট হয়েছে ব্যাপক ফসলি জমি। আজ শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে যমুনা নদীর পানি সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ পয়েন্টে ১৩ সেন্টিমিটার কমে বিপদসীমার ৩৬ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। জেলার কাজিপুর, সদর, বেলকুচি, চৌহালী ও শাহজাদপুর উপজেলায় অন্তত ৪০টি ইউনিয়নের পানিবন্দি মানুষ নিজ বাড়িতে ফিরে যাচ্ছে।

এদিকে পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে দৃশ্যমান হচ্ছে বন্যার ক্ষয়ক্ষতি। চলতি বন্যায় জেলার কৃষকদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বন্যার পানিতে নষ্ট হয়েছে ৮ হাজার ৯৫৬ হেক্টর জমির রোপা ও বোনা আমন, বীজতলা, সবজি, আখ ও কলার আবাদ। এতে লোকসানের মুখে পড়েছে ৭২ হাজার ৫২ জন কৃষক।

সিরাজগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (ডিডি) আবু হানিফ  জানান, এবার বন্যায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় কৃষির কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ব্যাহত হবে। ইতোমধ্যেই ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করা হচ্ছে তাদের প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা হবে।