ঢাকা ০৭:১৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সবাইকে কোরআন শরীফ পড়ার অনুরোধ আহমেদ শরীফের

চলচ্চিত্রের একসময়ের দাপুটে খলনায়ক ছিলেন আহমেদ শরীফ। এখন তিনি অভিনয় থেকে দূরে। যুক্তরাষ্ট্রে থাকছেন তিনি। মাঝে মাঝে দেশে আসেন। নামাজ- পবিত্র কোরআন শরীফ পড়ে সময় কাটে তার।

আমেরিকায় কীভাবে দিন পার করেন জানিয়ে আহমেদ শরীফ একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘যখন সিনেমার জগতে ছিলাম, তখন সকাল ৮টা বা ৯টায় এফডিসিতে যাওয়ার উদ্দেশে বের হতাম। বাসায় ফিরতে রাত১টা বা দেড়টা বেজে যেত। কখন সূর্য উঠতো, কখন ডুবতো কিছুই বুঝতাম না; কাজের মধ্যে ডুবে থাকতাম। খুবই ব্যস্ততায় সময় কাটতো। বিদেশে গিয়ে সেই ব্যস্ততা থেমে গেছে। প্রথমদিকে মানিয়ে নিতে বেশ কষ্ট হয়েছে, এখনও খানিকটা হয়। আমেরিকায় আমার একেবারেই কোনো কাজ নেই। সময় কাটাতে নিয়মিত পত্রিকা পড়ি, টিভি দেখি আর বই পড়ি।’

আহমেদ শরীফ যোগ করেন, ‘যে কথাটি বলতে আমার সবচেয়ে বেশি আনন্দ হচ্ছে তা হলো, আমি যখন সময় কাটানোর কষ্ট অনুভব করছিলাম, সে সময় আল্লাহ আমাকে একটি পথ দেখিয়েছেন। আমি কোরআন শরীফ পড়া শুরু করেছি। আমার মনে হলো, এখন তো অনেক সময় আছে, একটু বাংলা কোরআন শরীফ পড়িতো, দেখি কী বলেছেন আল্লাহতায়ালা। আমি এতটাই মুগ্ধ হয়েছি যে, একদিনেই ১০ পারা পড়া শেষ করেছি। সেটি আমার প্রচণ্ড ভালো লাগতে শুরু করলো এবং অনেক কিছুই শিখতে পারলাম।’

অনুরাগীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি ধর্মভীরু নই, ধর্ম পরায়ণ। সবাইকে অনুরোধ করব, আপনারা অবশ্যই কোরআন শরীফ পড়ুন। নিজের আত্মার শান্তি পাবেন, অনেককিছু জানবেন।’

প্রায় ৫০ বছরের ক্যারিয়ারে আট শতাধিক সিনেমায় দাপটের সঙ্গে অভিনয় করেছেন আহমেদ শরীফ। ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি প্রতিষ্ঠার সময়ে প্রথম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি। এরপর আরও দুই মেয়াদে সাধারণ সম্পাদক এবং চার মেয়াদে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন গুণী এই অভিনেতা।

বিষয় :
প্রতিবেদক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

অনলাইন ডেস্ক

জনপ্রিয়

সবাইকে কোরআন শরীফ পড়ার অনুরোধ আহমেদ শরীফের

প্রকাশিত: ১২:০৩:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ অক্টোবর ২০২২

চলচ্চিত্রের একসময়ের দাপুটে খলনায়ক ছিলেন আহমেদ শরীফ। এখন তিনি অভিনয় থেকে দূরে। যুক্তরাষ্ট্রে থাকছেন তিনি। মাঝে মাঝে দেশে আসেন। নামাজ- পবিত্র কোরআন শরীফ পড়ে সময় কাটে তার।

আমেরিকায় কীভাবে দিন পার করেন জানিয়ে আহমেদ শরীফ একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘যখন সিনেমার জগতে ছিলাম, তখন সকাল ৮টা বা ৯টায় এফডিসিতে যাওয়ার উদ্দেশে বের হতাম। বাসায় ফিরতে রাত১টা বা দেড়টা বেজে যেত। কখন সূর্য উঠতো, কখন ডুবতো কিছুই বুঝতাম না; কাজের মধ্যে ডুবে থাকতাম। খুবই ব্যস্ততায় সময় কাটতো। বিদেশে গিয়ে সেই ব্যস্ততা থেমে গেছে। প্রথমদিকে মানিয়ে নিতে বেশ কষ্ট হয়েছে, এখনও খানিকটা হয়। আমেরিকায় আমার একেবারেই কোনো কাজ নেই। সময় কাটাতে নিয়মিত পত্রিকা পড়ি, টিভি দেখি আর বই পড়ি।’

আহমেদ শরীফ যোগ করেন, ‘যে কথাটি বলতে আমার সবচেয়ে বেশি আনন্দ হচ্ছে তা হলো, আমি যখন সময় কাটানোর কষ্ট অনুভব করছিলাম, সে সময় আল্লাহ আমাকে একটি পথ দেখিয়েছেন। আমি কোরআন শরীফ পড়া শুরু করেছি। আমার মনে হলো, এখন তো অনেক সময় আছে, একটু বাংলা কোরআন শরীফ পড়িতো, দেখি কী বলেছেন আল্লাহতায়ালা। আমি এতটাই মুগ্ধ হয়েছি যে, একদিনেই ১০ পারা পড়া শেষ করেছি। সেটি আমার প্রচণ্ড ভালো লাগতে শুরু করলো এবং অনেক কিছুই শিখতে পারলাম।’

অনুরাগীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি ধর্মভীরু নই, ধর্ম পরায়ণ। সবাইকে অনুরোধ করব, আপনারা অবশ্যই কোরআন শরীফ পড়ুন। নিজের আত্মার শান্তি পাবেন, অনেককিছু জানবেন।’

প্রায় ৫০ বছরের ক্যারিয়ারে আট শতাধিক সিনেমায় দাপটের সঙ্গে অভিনয় করেছেন আহমেদ শরীফ। ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি প্রতিষ্ঠার সময়ে প্রথম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি। এরপর আরও দুই মেয়াদে সাধারণ সম্পাদক এবং চার মেয়াদে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন গুণী এই অভিনেতা।